চিনের উহান শহরের একটি সিফুড মার্কেট থেকে শুরু হয়েছিল। বর্তমানে চিন ছাপিয়ে করোনাভাইরাস সংক্রমণ 'গ্লোবাল থ্রেট'-এ পরিণত হয়েছে। গোটা বিশ্বে চোখ রাঙাচ্ছে এই মারণরোগ। চিনের অবস্থা শোচনীয়। সেই একই পথে এগোচ্ছে আরও তিন দেশ - দক্ষিণ কোরিয়া, ইতালি এবং ইরান। এরমধ্যে কাজের সূত্রে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ইরান-এ গিয়ে আটকে পড়েছেন এক বাঙালি যুবক সায়ন্তন বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর সঙ্গে আছেন আরও দশ ভারতীয়। কোনওভাবেই ইরান থেকে বের হওয়ার পথ না পেয়ে ভারতের বিদেশ দপ্তরের কাছে তাদের উদ্ধার করার জন্য এক ভিডিও বার্তায় আবেদন করলেন সায়ন্তন।

আরও পড়ুন - কেরলের পর এবার মুম্বই, বিমানবন্দরের স্ক্রিন টেস্টে ধরা পড়ল এক যাত্রীর করোনা উপসর্গ

কলকাতার রাসবিহারি অঞ্চলের বাসিন্দা সায়ন্তন। ইলেকট্রিকাল ইঞ্জিনিয়ার এই বাঙালি যুবক, দুবাই-এ একটি বহুজাতিক সিটারেট প্রস্তুতকারক সংস্থায় কাজ করেন। কাজের সূত্রে মাঝেমধ্যেই অন্যান্য দেশেও যেতে হয়। সেইরকমভাবেই দিনকয়েক আগে তিনি এসেছিলেন ইরানের রাজধানী তেহরানের কাছের এক শহর ফরান-এ। এরপরই ইরানে ক্রমে ভয়াল আকার ধারণ করে করোনাভাইরাস সংক্রমণ। সোমবার পর্যন্ত ইরানে ৯৭৮ জন এই রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। আর মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৫৪-তে।

আরও পড়ুন - করোনা নিয়ে নাজেহাল বিশ্ব, চটজলদি সমাধান দিলেন যোগী আদিত্যনাথ

এই ভয়াবহ পরিস্থিতিতে ইরান থেকে যতগুলি উড়ান ছিল সব বাতিল করে দেওয়া হয়েছে অথবা দু-তিন সপ্তাহের জন্য স্থগিত রাখা হয়েছে। এর ফলে ইরানেই আটকে পড়েছেন সায়ন্তনরা। ভিডিও বার্তায় সায়ন্তন জানিয়েছেন, ফরান-এ একটি অ্যাপার্টমেন্টে তাঁদের সংস্থার ২২ জন কর্মী একসঙ্গে রয়েছেন। তারমধ্যে সায়ন্তনকে নিয়ে মোট ১১জন ভারতীয়। বাকিদের মধ্যে কয়েকজন পাকিস্তানি, কয়েকজন শ্রীলঙ্কান এবং বাকিরা নেপালি। ইরান থেকে তাঁরা বের হতে পারছেন না শুধু নয়, করোনার থাবা তাঁদের উপরও পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন সায়ন্তরা। কারণ, মাত্র ১৩০ কিলোমিটার দূরের শহর কোম্ব-এই এই রোগে বেশ কয়েকজনের মৃত্যু হয়েছে, নতুন করে আক্রান্ত হওয়ার খবরও মিলেছে।   

এই 'দমবন্ধ করা' পরিস্থিতি থেকে মুক্তি পেতে সায়ন্তন ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের সহায়তা চেয়েছেন। ভিডিও বার্তার মাধ্যমে তিনি বিদেশ মন্ত্রকের কাছে আবেদন করেছেন, তাদের ইরান থেকে উদ্ধার করার জন্য দ্রুত কোনও ব্যবস্থা করার। এর আগে বিদেশ মন্ত্রক থেকে এক ভ্রমণ নির্দেশিকা জারি করে বলা হয়েছিল এই সময় দক্ষিণ কোরিয়া, ইতালি ও ইরানে ভারতীয় নাগরিকদের 'না যাওয়াই ভালো'। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও দুদিন আগেই এক ভ্রমণ নির্দেশিকা জারি করে ইরান থেকে আগত বিদেশিদের মার্কিন মুলুকে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।

আরও পড়ুন - করোনায় সংক্রমিত আরও ২, একজন দিল্লির অন্যজন তেলেঙ্গনার

এই কঠিন পরিস্থিতিতে সায়ন্তনদের উদ্ধারে ভারত সরকার কী ব্যবস্থা নেয় সেটাই দেখার। এর আগে চিনে উহান থেকে বেশ কয়েক দফায় আটকে পরা ভারতীয় নাগরিকদের ফিরিয়ে এনেছে ভারত। তাদের মধ্যে বেশ কয়েকজন বাঙালিও ছিলেন।