জ্বর ছিলই। রাস্তায় বেরিয়ে অসুস্থ হয় পড়লেন এক যুবক। করোনা সন্দেহে কলকাতায় আরও একজনকে ভর্তি বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে। ধর্মতলা বাসস্ট্যান্ড থেকে ওই যুবককে উদ্ধার করে পুলিশ। 

'জনতা কারফিউ' জেরে রবিবার কলকাতায় দিনভর শুনসান ছিল রাস্তাঘাট। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আহ্বানে সাড়া দিয়ে বাড়ির বাইরে বেরোননি শহরের বেশিরভাগই মানুষ। শুধু তাই নয়, বিকেল পাঁচটায় বেজেছে শাঁখ, কাঁসর, ফাটানো হয়েছে বাজিও। এরমাঝেই সেদিন শহরে আসেন কেরলে কর্মরত এক যুবক। তাঁর গন্তব্য ছিল, অসম।  ওই তরুণ জ্বরে ভুগছিলেন বলে জানা গিয়েছে। কিন্তু বাড়ির ফেরার তাড়ায় অসুস্থতাকে আর গুরুত্ব দেননি তিনি। আর তাতেই ঘটল বিপত্তি।

আরও পড়ুন: ছিল না তাঁদের কাছে ট্রেন বন্ধের খবর, লকডাউনে শিয়ালদায় আটকে ভিন রাজ্যের যাত্রী

পুলিশ জানিয়েছে, সোমবার সকালে উত্তরবঙ্গগামী বাস ধরার জন্য ধর্মতলা বাসস্ট্যান্ডে যান তিনি। চড়া রোদে কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকার পরেই অসুস্থ হয়ে পড়ে। রাস্তাতেই শুয়ে পড়েন অসমের বাসিন্দা ওই যুবক। বাসস্ট্যান্ডে যাঁরা ছিলেন, তাঁরাই থানায় খবর দেন। অসুস্থ অবস্থায় ওই যুবককে উদ্ধার করে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ।  তাঁর নাম বা পরিচয় এখনও জানা যায়নি। তবে সূত্রের খবর, অসমের বাসিন্দা হলেও ওই যুবক বাঙালি। পুলিশকর্মীদের সঙ্গে সাবলীলভাবে বাংলাতেই কথা বলেছেন তিনি।  

আরও পড়ুন: করোনা রুখতে লকডাউন শহর, আইন ভাঙলে হতে ২ বছরের জেলও

উল্লেখ্য, করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় সোমবার বিকেল পাঁচটা কলকাতা লকডাউন ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার। নবান্ন থেকে নির্দেশিকা জারি করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, লকডাউন চলাকালীন যদি রাস্তা বেরুন, তাহলে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এমনকী, দু'বছরের জেলও হতে পারে।