রোজভ্যালি কাণ্ডে এবার চার্টার্ড অ্যাকাউন্টেন্ট গোবিন্দ আগরওয়ালের বাড়ি ও অফিসে হানা দিল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। কলকাতায় তিনটি জায়গা এই হানা দিয়েছে ইডি। তপসিয়া, লেক গার্ডেন ও বালিগঞ্জে চলছে তল্লাশি। অভিযোগ রোজভ্যালির টাকা গোবিন্দ আগরওয়াল এর মাধ্যমে বাজারে খাটানো হত। এর আগে কলকাতা পুলিশ গোবিন্দ আগরওয়ালের অফিসে হানা দিয়ে একশো কোটিরও বেশি টাকা উদ্ধার করেছিল।

আরও পড়ুনঃ মাকে টাকা পৌঁছে দিচ্ছে না পুলিশ, বিস্ফোরক গৌতম কুণ্ডু
ফের থমকে গেল সিবিআই, ২২ জুলাই পর্যন্ত গ্রেফতার করা যাবে না রাজীব কুমারকে

কলকাতা পুলিশের অ্যান্টি রাওডি শাখা গোবিন্দ আগারওয়ালের অফিসে যখন তল্লাশি অভিযান চালায় সেই সময় ১কোটি টাকা এবং একটি ল্যাপটপ বাজেয়াপ্ত করে। পুলিশ সূত্রে খবর, সেই ল্যাপটপে 'ম্যাডাম রোজভ্যালি' নামক একটি ফোল্ডার ছিল এবং সেখান থেকেই মনোজ কুমার সংক্রান্ত তথ্য কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার হাতে আসে। সেই সূত্র ধরেই গ্রেফতার হয় মনোজ কুমার। আজ সেই চাটার্ড অ্যাকাউন্টেন্ট গোবিন্দ আগারওয়ালের লেক গার্ডেন্স, বালিগঞ্জ এবং ট্যাংরার বাড়িতে তল্লাশি চালাচ্ছে ইডি। ইডি সূত্রে খবর, প্রাথমিক তদন্তে তাঁরা মনে করছেন, এই চার্টার্ড আকাউন্টেন্টের ফার্মের মধ্যে দিয়েই রোজভ্যালির কয়েকশো কোটি টাকা বাজারে ছড়িয়ে দেওয়া হত। এই ব্যক্তির সাথে কোন কোন প্রভাবশালী ব্যক্তিদের সাথে  যোগাযোগ ছিল বা আছে সেই নথি খুঁজতেই আজ তার বাড়িতে ইডির তল্লাশি অভিযান বলে ইডি সূত্রে খবর।

প্রসঙ্গত দিন কয়েক ধরেই আইপিএস অফিসার নীরজ সিংহের নামও জড়িয়েছে এই কাণ্ডে। অভিযোগ ছিল গৌতম কুন্ডু এবং গোবিন্দ আগরওয়ালের সঙ্গে পোর্টব্লেয়ার বেড়াতে যান নীরজ। এমনকী এই গোবিন্দ আগরওয়ালের হাত ধরেই পোর্টব্লেয়ারে কিছু জমি কিনেছেন নীরজ বলেও খবর। এই অভিযোগকে নস্যাৎ করে এই বরিষ্ঠ আইপিএস অফিসার এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে চিঠি দিয়েছেন সম্প্রতি।