গত শনিবার বাগুইআটির মল রোডে একটি ভাড়া বাড়ি থেকে এক তরুণীর দেহ উদ্ধারের ঘটনা। খুনের নেপথ্যে থাকা অভিযুক্তকে গ্রেফতার করল পুলিশ। খুনের পর থেকেই বেপত্তা ছিল অভিযুক্ত। অভিযুক্তের খোঁজে তদন্ত শুরু করে বাগুইআটি থানার পুলিশ। অবশেষে, পুলিশের হাতে ধরা পড়ে অভিযুক্ত।

আরও পড়ুন-ভোটে গুরুত্ব বাড়ছে নন্দীগ্রামের, ১৮ জানুয়ারি শুভেন্দুকে জবাব দিতে মমতার সভা

বাগুইআটির মল রোডে একটি ভাড়া বাড়িতে থাকতেন বার ডান্সার কুইটি কউল। তাঁর সঙ্গে সৌরভ চক্রবর্তী নামে এক যুবক থাকতেন বলেও জানা গিয়েছে। এলাকার বাসিন্দারা দুর্গন্ধ পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ এসে ওই ভাড়া বাড়ি থেকে সুইটির মৃতদেহ উদ্ধার করে। ঘটনার পর থেকেই পলাতক ছিলেন তরুণীর বন্ধু সৌরভ চক্রবর্তী। সুইটি ওই যুবককে স্বামী বলে পরিচয় দিয়ে ছিলেন। 

আরও পড়ুন-'একটাই ভারতবর্ষ, নাগরিকদের এক পরিচিতি', তমলুকে বর্গভিমা মন্দিরে পুজো দিয়ে বললেন রাজ্যপাল

ঘটনার পর থেকেই পলাতক ছিল অভিযুক্ত। পুলিশ সূত্রে খবর, সুইটিকে খুনের পর ঘটনাটি সৌরভ তাকর বন্ধুকে জানায়। এরপরই গোপন সূত্রে খবর পেয়ে মঙ্গলবার উত্তর ২৪ পরগনার খড়দায় হানা দেয় পুলিশ। বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে আত্মগোপন করেছিল সৌরভ। সেখান থেকেই সুইটি খুনে অভিযুক্ত সৌরভকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী, শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে সুইটি। পঞ্জাব থেকে বাগুইআটিতে এসেছেন সুইটির আত্মীয়রা।