চিন্তা বাড়াচ্ছে রাজ্য়ের তিন জেলা। রেড জোনের এই তিন জেলাতেই সংক্রমিতের হার ৮৮ শতাংশ। এই জেলাগুলি হল কলকাতা, হাওড়া ও উত্তর ২৪ পরগনা। বাকি জেলাগুলিতে রয়েছে ১২ শতাংশ কোভিড রোগী। বুধবার নবান্নে এই কথা বলেন রাজ্য়ের মুখ্য়সচিব রাজীব সিনহা।   

কারা আছেন জানেন না, করোনার অডিট কমিটি তিনি করেননি বললেন মমতা.

তিনি  জানান, মঙ্গলবার পর্যন্ত রাজ্যে করোনা অ্যাক্টিভের সংখ্যা ছিল ৫২২। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫ জন। নতুন করে একদিনে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৩ জন। অর্থাৎ, এখন রাজ্যে মোট কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা ৫৫০।  তবে খুশির খবর, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্য়ে করোনা আক্রান্ত হয়ে কেউ মারা যাননি। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে ১৩৯৭টি। এখনও পর্যন্ত রাজ্যে মোট পরীক্ষা হয়েছে ১৪ হাজার ৬২০টি।

২০ জনের বেশি যাত্রী নয়,গ্রিন জোনে চলবে বেসরকারি বাস.

রাজ্য় সরকারের বুধবার পর্যন্ত দেওয়া তথ্য় বলছে,বর্তমানে সরকারি কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ৫৪৩৯ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড়া পেয়েছেন ৪১৫ জন। এদিনই নবান্নে কিছু বিষয়ে নতুন করে লকডাউনে ছাড় দিয়েছেন মুখ্য়মন্ত্রী। গ্রিন জোনে বেসরকারি বাস পরিষেবা চালু করার পাশাপাশি নির্দিষ্ট কিছু দোকান খোলার অনুমতি দিয়েছেন তিনি।  যদিও এই ছাড়পত্রের পরও বয়স্কদের বাড়ি থেকে বেরোতে মানা করেছেন মুখ্য়সচিব।

২০ জনের বেশি যাত্রী নয়,গ্রিন জোনে চলবে বেসরকারি বাস.

রাজ্য়ের করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় কী ব্য়বস্থা নেওয়া হচ্ছে সে প্রসঙ্গে মুখ্য়সচিব জানান, রাজ্যে প্রতিদিন নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে।  রাজ্যে ৬৬টি হাসপাতালে চিকিৎসা হচ্ছে। করোনা চিকিৎসার জন্য ৮ হাজার বেড রয়েছে। এর মধ্যে ৩৪ শতাংশ বেডই রয়েছে কলকাতা, হাওড়া ও উত্তর ২৪ পরগনায়।