নাড্ডার পর এবার রাজ্যের খাদ্য মন্ত্রী জ্য়োতিপ্রিয় মল্লিকের প্রাক্তন জামাই অভ্র সেনের গাড়ির উপর হামলা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে কলকাতার বাঁশদ্রোণী এলাকায়। স্থানীয় তৃণমূলের নের্তৃত্বের বিরুদ্ধেই অভিযোগ তুলেছেন রাজ্যের সক্রিয় বিজেপি কর্মী অভ্র সেন। ইতিমধ্যেই তিনি এ বিষয়ে অভিযোগ দায়ের করেছেন রিজেন্ট পার্ক পুলিশ স্টেশনে। শুভেন্দুর সভার দিনেই কার্যত এমন ঘটনায় তৃণমূলের ভরাডুবি নিয়ে চাপান উতোর চলছে রাজনৈতিক মহলে।

 

 

 'আক্রোশের প্রতিফলন'

অভ্র সেন জানিয়েছেন, তিনি শনিবার সকালে গাড়ি নিয়ে বেরোতে গিয়ে দেখেন, গাড়ির উপর রীতিমত হামলা চালানো হয়েছে। ভেঙে টুকরো টুকরো করে দেওয়া হয়েছে গাড়ির কাঁচ। তাঁর অভিযোগ স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের বিরুদ্ধে। উল্লেখ্য, এই একই ঘটনা হয়েছিল ২০১৯ সালেও। এই নিয়ে দ্বিতীয়বার তাঁর গাড়ি উপর হামলা চালানো হয়েছে। তবে শুধু গাড়ির কাঁচ ভাঙাই নয়, শিকড় খুঁজলে পাওয়া যাবে 'আক্রোশের প্রতিফলন'।

'প্রাণ নাশের হুমকি পেয়েছি-পরিবারের নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তায় রয়েছি'

 তিনি জানিয়েছেন, 'বাংলায় শাসক দলের বিরুদ্ধে বিজেপিতে আমি কাজ করার জন্য প্রাণ নাশের হুমকি পেয়েছি। অসংখ্যবার আমাকে ফোন করা হয়েছে। আমার গাড়ির উপর হামলা চালানো হয়েছে। আমার বাড়িতে ছোট ভাই এবং বৃদ্ধ মা-বাবা রয়েছেন। আমি আমার পরিবারের নিরাপত্তা নিয়ে যথেষ্ট চিন্তায় রয়েছি।' আগেও রাজ্য সরকারের পুলিশি নিষ্কিয়তার অভিযোগ তুলে রাজ্য়পালকে মেল করেছিলেন অভ্র সেন। সে সময় রাজ্য়ের স্বরাষ্ট্রসচিব ছিলেন আলাপণ বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। রাজ্যপালের দফতর থেকে রাজ্য় সরকারকে জানানোও হয়েছিল। কিন্তু শাসকদলের তরফে কোনও পদক্ষেপই নেওয়া হয়নি। অভ্র সেন জানিয়েছেন, তিনি বিজেপি করেন বলেই তৃণমূলের আক্রোশের প্রতিফলন বারবার ফিরে আসছে।

 

 

যাদবপুরের মেধাবী ছাত্র অভ্র সেন, একটা সময় পড়িয়েছেন নিজের বিশ্ববিদ্যালয়েই

অপরদিকে, রাজ্যের খাদ্য মন্ত্রী জ্য়োতিপ্রিয় মল্লিকের প্রাক্তন জামাই অভ্র সেন। ২০২০ সালের পুজোর আগেই তিনি ডির্ভোস দিয়েছেন।  বেরিয়ে এসেছেন যাবতীয় সম্পর্ক থেকে।  পাশপাশি  যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের বরাবরের মেধাবী ছাত্র অভ্র সেন। একটা সময় তিনি নিজের বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাসও নিয়েছেন। কিন্তু তা সুদীর্ঘ হয়নি। বারবার  যাদবপুর বিশ্ববিশ্ববিদ্যালয়ে ভিতরে কিংবা বাইরে বারবার রাজনৈতিক চক্রান্তের শিকার হয়েছেন, এমনটাই জানিয়েছেন অভ্র সেন।

 

 


'ভাঙণের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে তৃণমূল'

উল্লেখ্য, ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচন যতোই এগিয়ে আসছে, রাজ্যে বিজেপি কর্মীর উপর হামলা ততোই বেড়ে চলেছে। এনিয়ে অনেক প্রতিবাদ জানিয়ে টুইট করেছেন রাজ্যপাল। তবে একের পর এক তৃণমূলের নেতা, কর্মীদের বিজেপিতে যোগদান ভাঙণের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে 'মা-মাটি-মানুষের সরকার'কে, একথা কাঁথির সভা থেকেই বলেছেন শুভেন্দু অধিকারী। তাই দলীয় হোক কিংবা পারিবারিক, তৃণমূলের থেকে গাঁটবন্ধন খুলে নিলেই যে দিশেহারা অবস্থা হয়, তারই 'প্রতিফলন' আরও একবার ফুঁটে উঠল কলকাতার বুকে।