দিলীপ ঘোষের পর এবার কৈলাশ বিজয়বর্গীয়। দিল্লির নিজামুদ্দিনে যোগদানকারীদের একহাত নিলেন রাজ্য় বিজেপির পর্যবেক্ষক। সরাসরি ওই সমাবেশে অংশগ্রহণকারীদের মানববোমা বললেন বিজেপির এই কেন্দ্রীয় নেতা। কৈলাসের দাবি, অবিলম্বে আত্মসমর্পণ করুক ওই ব্যক্তিরা। প্রশাসনের কাছে নিজেদের চিকিৎসার জন্য় সরাসরি আসা উচিত অংশগ্রহণকারীদের। নয়লে বিপদ বাড়বে।

সেকুলার অপর্ণার মুখে 'দিলীপ ঘোষের কথা' , নিজামুদ্দিন নিয়ে কী বললেন অভিনেত্রী.

তবে বিজয়ব্রগীয় একা  নন, মুসলিমদের এই সমাবেশ নিয়ে আগেই বেফাঁস মন্তব্য় করেছেন বিজেপির রাজ্য় সভাপতি দিলীপ ঘোষ। নাম না করে দেশে করোনা ছড়ানোর জন্য় মুসলিমদের দায়ী করেছিলেন তিনি। সম্প্রতি হাওড়ার এক সভায় দিলীপবাবু বলেন, যারা আল্লার ভরসায় রয়েছেন, তাঁরাই আক্রান্ত হচ্ছেন। হাওড়ার এক সভায় বিজেপি নেতা বলেন, যারা আল্লার ভরসায় রয়েছেন, তাঁরাই আক্রান্ত হচ্ছেন। সম্প্রতি লকডাউন উপেক্ষা করে দিল্লির নিজামুদ্দিনের সমাবেশে হাজারেরও বেশি মানুষকে গাদাগাদি করে বসতে দেখা যায়। রাজ্য় থেকেও অনেকে সেই সমাবেশে যোগ দেন। এখন কেন্দ্রীয় সরকার সতর্ক করার পর দিল্লির ধর্মীয় সমাবেশে যোগদানকারীদের চিহ্নিত করেছে রাজ্য় সরকার।

কলকাতার আকাশে গোলাপি চাঁদ ! করোনার মাঝেই মহাজাগতিক দৃশ্য.

 করোনা সংক্রমণ নিয়ে যখন দেশজুড়ে আতঙ্ক, তখন এই সমাবেশ নিয়ে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি বিজেপির রাজ্য় সভাপতি। নাম না করে রাজ্য়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যাবৃদ্ধির জন্য়  মুসলিমদেরই দায়ী করেন তিনি। দিলীপবাবু বলেন, বিদেশ থেকে বহু মানুষ এখানে আসছেন। টুরিস্ট ভিসা নিয়ে আসেন। যেহেতু বিশেষ সম্প্রদায়ভুক্ত তাই তাঁদের কিছু বলা যাবে না। আর তার পরিণামই আমরা এখন ভোগ করছি। যারা আল্লাহর দয়ায় সুস্থ হবেন বলছেন তাঁরাই আক্রান্ত হচ্ছেন। মন্দির জমায়েত বন্ধ করলেও সেভাবে এগিয়ে আসছে না মসজিদ।

দেশে করোনায় মৃত্যুর হার ৩ শতাংশ, বাংলায় ২৫ শতাংশ বলছেন দিলীপ...

দেশের করোনা আক্রান্তের পরিসংখ্যান বলছে, কেবল দিল্লির নিজামুদ্দিনে তবলিগি জামাতের ৬৪৭ জন করোনা আক্রান্ত। যাদের মধ্য়ে নিজের রাজ্য়ে পৌঁছে ইতিমধ্য়েই১২ জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। অন্তত ১৪ রাজ্য়ে ছড়িয়ে পড়েছে করোনার সংক্রমণ। গত ১৩ মার্চ নিজামুদ্দিনে তবলিগি জামাতের সমাবেশ হয়। সেখানে ভারত ছাড়াও বাইরের দেশ থেকে অংশ নেন বহু মানুষ। সব মিলিয়ে প্রায় ৯ হাজার মানুষ যোগ দিয়েছিলেন ওই সমাবেশে। ইতিমধ্য়েই জামাতের ওই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীদের খোঁজ শুরু হয়েছে পশ্চিমবঙ্গে।