মুকুল নাকি অশোক, কাকে  বিধানসভার PAC-এর চেয়ারম্যান করতে চলেছে বিজেপি।  উল্লেখ্য, বিধানসভার পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির (PAC) দায়িত্ব থাকছে বিজেপির হাতে।  তাই এনিয়ে এই মুহূর্তে গেরুয়া শিবিরের জল্পনা তুঙ্গে।

আরও পড়ুন, মুখ্যমন্ত্রীকে নিয়ে ফেসবুকে অশালীন ভিডিও পোস্ট, অভিযোগ দায়ের লালবাজারে 

 

 

প্রাথমিকভাবে মনে করা হয়েছে, মুকুল রায়কে PAC-র প্রেসিডেন্ট করা হবে। রাজ্য বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, এই পদের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের প্রাক্তণ অর্থ বিষয়ক উপদেষ্টা অশোক লাহিড়ীই প্রথম পছন্দ গেরুয়া শিবিরের।বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে যদি মুকুল রায়কে এই পদের দায়িত্ব না দেওয়া হয়, তাহলে তা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। উল্লেখ্য একুশের নির্বাচনে তিনি বালুরঘাট থেকে জয়ী হয়েছেন। লোকসভা নির্বাচনে যেখানে রাজ্যজুড়ে বিজেপির জয় হয়েছিল, সেখানে বালুরঘাট আএসপি-র দখলে ছিল। বামেদের শক্ত ঘাঁটি জয় করেন অশোক লাহিড়ীই। এখানেই শেষ নয়, তিনি দীর্ঘদিন কেন্দ্রীয় সরকারের অর্থ বিষয়ক উপদেষ্টা ছিলেন। তাই মুকুল না অশোক, কাকে  বিধানসভার PAC-এর চেয়ারম্যান করতে চলেছে বিজেপি, এনিয়ে যথেষ্ট ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে।

 

আরও পড়ুন, নেই ছাত্র-ছাত্রীর কলবর, শহরের স্কুলের বন্ধ ক্লাসরুমেই এবার আস্ত 'কোভিড কেয়ার ইউনিট'  

 

 

তবে শুধু ভোটে মুকুল-অশোকের জয়ই নয়, মাঝে বয়ে গেছে উল্টো ধারার স্রোত। কারণ মাঝে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মুকুল রায়ের স্ত্রী গত ১৫ দিনের উপরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এহেন পরিস্থিতিতে গত ১৫ দিনে দলের কেউ তেমন খোঁজ নেয়নি বলে খবর।  এরপর অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্যায় মুকুল রায়ের স্ত্রীর খবর নিতে হাসপাতালে যান। আর এখানেই সরগরম রাজ্য-রাজনীতি।  তৃণমূলের যুবরাজ যেতেই খোঁজ নেন বিজেপির রাজ্যসভাপতি দিলীপ ঘোষ। ফোন করেন প্রধানমন্ত্রী মোদীও। রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে মুকুল রায়ের এখন দল বদলের জল্পনা তুঙ্গে। তাই এই পরিস্থিতিতে মুকুলকে ধরে রাখতেই PAC-র প্রেসিডেন্ট করা হচ্ছে বলেও মনা করা হচ্ছে।