ব্যক্তিগত স্বাধীনতার হস্তক্ষেপের প্রশ্নে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্য়াপক অম্বিকেশ মহাপাত্রের কথা হয়তো অনেকেরই মনে পড়ে। কার্টুণ কাণ্ডের জেরে রাজ্য সরকারের রোষের মুখে পড়েছিলেন বর্ষীয়ান ওই অধ্যাপক। 'ভাগ মুকুল ভাগ' ফেসবুক পোস্ট ঘিরে রাজনীতির বিতর্কে জড়িয়েছিলেন তিনি। এবার রাজরোষে পড়লেন আরও এক ব্লগার। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও গুজব ছড়ানোর অভিযোগে কলকাতা থেকে আরও এক যুবককে গ্রেফতার করল পুলিশ।

আরও পড়ুন-উত্তরকন্যা অভিযানে মৃত্যু বিজেপি কর্মীর - 'গুলি চালিয়েছে পুলিশ', বিস্ফোরক অভিযোগ দিলীপের

জানাগেছে,  ট্য়ুইটারে প্রয়াত মুসলিম লীগের সিনিয়র নেতা হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর প্রয়ান দিবস উপলক্ষে শোকজ্ঞাপন করেছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপরই মুখ্যমন্ত্রীর ফেসবুক পোস্টের স্ক্রিনশট নিয়ে কলকাতার ডানপন্থী যুবকদের জনপ্রিয় একটি ব্লগিং সাইট ও ফেসবুক পেজ “দ্যা বেঙ্গল আউল''- এ শুরু হয় তিব্র বিতর্ক। ১৯৪৬ সালের আগস্ট মাসে কলকাতায় হিন্দু –মুসলিম সাম্প্রদায়িক সংঘর্ষের ঘটনার প্রসঙ্গ তুলে একাধিক পোস্ট করা হয়। একাধিক বিতর্কিত পোস্ট করা হয় বলে অভিযোগ। এই পোস্ট শেয়ার করেন বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব দেবজিৎ সরকার সহ একাধিক বিজেপি নেতা। 

আরও পড়ুন-'বিজেপি যে কোনও দলকে কিনতে পারে, কিন্তু তৃণমূলকে নয়', মেদিনীপুরে বিজেপিকে কী বললেন মমতা

এর জেরে সোশ্যাল সাইটে বিতর্কিত পোস্টের মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি নষ্ট ও গুজব ছড়ানো সহ একাধিক ধারায় অভিযোগ দায়ের করা হয় হাওড়ার সাইবার ক্রাইম শাখায়  অভিযোগ পাওয়ার পরই সক্রিয় হয়ে উঠে পুলিশ। কলকাতার লেকটাউন  থেকে গ্রেফাতার করা হয় ব্লগিং সাইট ও ফেসবুক পেজটির অ্যাডমিন শুভ সেনগুপ্তকে। গোটা ঘটনায় পশ্চিমবঙ্গে বাক স্বাধিনতা নেই  বলে অভিযোগ করছেন ফেসবুক পেজটির আরও এক অ্যাডমিন সায়ন দাস। সরকার বিরোধী সমালোচোনার জেরেই এই গ্রেফতারির ঘটনা বলেও অভিযোগ করেন তিনি।