বর্ষবরণের রাতে বন্ধুদের সঙ্গে পিকনিক করতে বেরিয়ে, নতুন বছরে আর বাড়ি ফিরল না তরুণ। বন্ধু-বান্ধব সঙ্গে নৈশ ভোজ তারপর থেকেই নিখোঁজ ১৯ বছর বয়সি পল্লব হাজারী নামে ওই যুবক । মৃতের মা-র দাবি,  ৮০০ টাকার জন্য় খুন করা হল তাঁকে। চারদিন পর ভাগাড় থেকে উদ্ধার হল তাঁর মৃতদেহ। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে বর্ষবরণের দিন বেশ কয়েকজন বন্ধু-বান্ধব মিলে তারা পিকনিক করছিলেন। পিকনিক করার জন্য পল্লব কে ডেকে নিয়ে যায় তারই বন্ধু বিশাল যাদব ও জিতু নায়েক। এরপর ইট দিয়ে বুকে আঘাত করে খুন করা হয় পল্লব কে। খুন করার পর তার মৃতদেহ লোপাট করতে  সেপটিক ট্যাংক এর মধ্যে ফেলে দেওয়া হয়।এই ঘটনায় অভিযুক্ত দুই বন্ধু বিশাল যাদব ও জিতু নায়েক কে গ্রেপ্তার করেছে দমদম থানার পুলিশ। 

 

আরও পড়ুন, পৌষ বিদায়ের আগেই জাঁকিয়ে নামবে শীত কলকাতায় ,পারদ নামবে হু হু করে

রবিবার সকালে, দমদমের প্রমোদ নগর এলাকা থেকে পুলিশ তাঁর দেহ উদ্ধার করে। ওই তরুনের দেহে একাধিক ক্ষত চিহ্ন রয়েছে। কী জন্য় তাঁকে খুন করা হয়েছে , তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। সূত্রে জানা গিয়েছে, বর্ষবরণের রাতে ওই তরুন বন্ধুদের সঙ্গে পিকনিক করতে বেরিয়েছিল। তাঁরপর তার আর কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। নতুন বছর পড়তেই ১ জানুয়ারি ওই তরুনের মা, পুলিশের কাছে ডাইরি করেন। তবে পিকনিক করতে যাওয়ার সময় তাঁর দুই বন্ধু নিতে এসেছিল। পুলিশ আপাতত তাঁদের আটক করে রেখেছে। ইতিমধ্য়েই শুরু হয়েছে, দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ। রবিবার,  অভিযুক্তদের ব্যারাকপুর কোর্টে তোলা হবে পুলিশ নিজের হেফাজতের আবেদন জানাবে এবং খতিয়ে দেখবে আর্থিক কোন লেনদেন নাকি ত্রিকোণ প্রেমের জেরে এই খুন খতিয়ে দেখবে দমদম থানার পুলিশ।

আরও পড়ুন, বর্ধমান স্টেশনে পোর্টিকোয় ধস, ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক বলে দাবি পূর্ব রেলের

ওই তরুণকে কীভাবে বা কোথায় খুন করা হয়েছে , সে ব্য়াপারে ইতিমধ্য়েই পুলিশ তদন্তে নেমেছে। প্রমাণ লোপাটের জন্যই সেটি প্রমোদ নগরের ভাগাড়ে এনে ফেলা হয়েছিল কি না, খতিয়ে দেখছে পুলিশ। তবে ওই তরুণের মোবাইল ফোনটি এখনও খুঁজে পাওয়া যায়নি।  পুলিশের আধিকারিক জানিয়েছেন, মোবাইল ফোনটি  উদ্ধার করা গেলে তদন্তে উঠে আসবে আরও নতুন কিছু তথ্য়। । এই মর্মান্তিক ঘটনায় কান্নায় ভেঙে পড়েছেন মৃতের মা। তাঁর দাবি, ৮০০ টাকার জন্য দুই বন্ধুই তাঁর ছেলেকে খুন করেছে। তিনি জানিয়েছেন, তিনি তাঁর এক মাত্র ছেলেকে হারিয়েছেন, তাই এই মুহূর্তে তিনি ভীষন একা। তাঁর অভিযোগ, ৮০০ টাকা নিয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়েছিল ওই তরুন। সেই টাকার জন্যই ওকে খুন করা হয়েছে। তাই  মৃতের মা-র দাবি জানিয়েছেন,  দোষীদের কঠোর শাস্তি হোক।