বুধবার থেকে শুরু হচ্ছে লোকাল ট্রেন পরিষেবা। জেলা থেকে লক্ষ লক্ষ মানুষ আসবেন শহর কলকাতায়। এই পরিস্থিতিতে কলকাতার গণ পরিবহণ ব্যবস্থা যাতে স্বাভাবিক থাকে তাই সমস্ত দিক খতিয়ে দেখতে মঙ্গলবার মোটর ভিকেলস এর দপ্তরে বৈঠকে বসেছিলেন মোটর ভিকেলস এর অ্যাডিশনাল ডাইরেক্টর। বৈঠকে ডাকা হয়েছিল শহর কলকাতার বাস, মিনিবাস, ট্যাক্সি এবং অটো ইউনিয়নের কর্তাদের। মঙ্গলবার প্রায় ঘন্টাখানেক হয় এই বৈঠক। 

আরও পড়ুন: 'আইসোলেশন রুমের ব্যবস্থা রাখতে হবে',লোকাল ট্রেন চালুর আগে কী কী বিধি স্টেশনগুলিতে

বাস মালিক সংগঠনের কর্তা প্রদীপ নারায়ণ বোস এবং সুরজিৎ সাহা জানিয়েছেন, বাড়তি বাস নামানোর পাশাপাশি তাঁদের একাধিক দাবি-দাওয়ার কথা বৈঠকে তুলে ধরেছেন। বস্তুত,  বীমা সংক্রান্ত বিষয়ে দীর্ঘদিন ধরেই অভিযোগের কথা জানিয়ে আসছেন বাস মালিক সংগঠনের কর্তারা।  বৈঠকে থাকা অটো ইউনিয়নের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, শহর কলকাতার ১২৫টি রুটে পর্যাপ্ত অটো নামানো হবে বুধবার থেকে। নানান কারণে এবং সরকারি নির্দেশিকার জন্য এতদিন পর্যাপ্ত অটো রাস্তায় নামেনি। অটো ইউনিয়নের কর্তা প্রদীপ সাহা জানিয়েছেন, কে এম ডি এ এলাকায় ৩০ হাজার অটো চলে। বুধবার থেকে তার প্রায় ৯০% অটো রাস্তায় থাকবে। শিয়ালদা, বালিগঞ্জ, ঢাকুরিয়া, গড়িয়া, বিধাননগর সহ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ রেলস্টেশন রয়েছে যার সঙ্গে অটো রুট সরাসরি সম্পর্কযুক্ত। এই সমস্ত জায়গাগুলোতেও বাড়তি অটো চালানো হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। 

আরও পড়ুন: 'কালী পুজোয় বাজি নিষিদ্ধ', হাইকোর্টের নির্দেশিকা মনে করাতে শহরে পুলিশের মাইকিং

অন্যদিকে লোকাল ট্রেন বন্ধ থাকায় শহরতলীর একাধিক জায়গা থেকে চালানো হয়েছে সরকারি বাস। সেই সমস্ত সরকারি বাসের অধিকাংশই তুলে আনা হচ্ছে কলকাতায়। কলকাতায় বাড়িতে ভিড় সামাল দিতে ব্যবহার করা হবে এই সমস্ত বাসগুলো। একইসঙ্গে দক্ষিণবঙ্গ উত্তরবঙ্গ থেকে যে সমস্ত বাস তুলে আনা হয়েছিল। যে সমস্ত বাসের অধিকাংশই পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে তাদের নির্দিষ্ট রুটে।