মাটির নিচে টানেল বোরিং মেশিন বসিয়ে সুড়ঙ্গ খুঁড়তে গিয়েই বিপর্যয় ঘটেছিল বউবাজারে।  হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়েছিল একাধিক বাড়ি। বউবাজারে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর কাজ আপাতত বন্ধ। কিন্তু এখনও মাটির নিচে রয়ে গিয়েছে একটি টানেল বোরিং মেশিন। রক্ষণাবেক্ষণের জন্য সেই মেশিনটিকে ৫ মিটার এগনোর অনুমতি দিল কলকাতা হাইকোর্ট। মেশিন সরানোর কাজ শেষ করার কর ডিসেম্বরে ফের আদালতে রিপোর্ট জমা দিতে হবে মেট্রো কর্তৃপক্ষকে। মামলা পরবর্তী শুনানি ১৬ ডিসেম্বর।

কলকাতায় জোরকদমে চলছে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর কাজ। সেপ্টেম্বরের শুরুতে বউবাজারে মাটির নিচে সুড়ঙ্গ খুঁড়তে গিয়ে ঘটে বিপত্তি।  টানেল বোরিং মেশিনের চাপ সহ্য করতে না পেরে ভেঙে পড়ে একাধিক বাড়িটি। মেট্রো কর্তৃপক্ষের দাবি, এই ঘটনায় একটি টানেল বোরিং মেশিনের ক্ষতি হয়েছে। তবে মাটির নিচে আরও একটি টানেল বোরিং মেশিন বসানো হয়েছিল। নির্মীয়মাণ সুড়ঙ্গে প্রথম বোরিং মেশিনের পিছনে থাকায় দ্বিতীয় বোরিং মেশিন তেমন কোনও ক্ষতি হয়নি। সেটি অক্ষতই আছে। কিন্তু বউবাজারে এখন মেট্রো কাজ বন্ধ। তাই রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে দ্বিতীয় টানেল বোরিং  মেশিনটিরও ক্ষতি হচ্ছে। এই পরিস্থিতি ওই মেশিনটিকে ৫ মিটার এগিয়ে আনার আর্জি জানিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয় মেট্রো কর্তৃপক্ষ। ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর নির্মীণমানকারী সংস্থার তরফে বিশেষজ্ঞদের রিপোর্টও জমা দেওয়া হয় আদালতে।

সোমবার মামলার শুনানিতে বিশেষজ্ঞদের রিপোর্ট সন্তোষ প্রকাশ করে হাইকোর্টের বিচারপতি থোট্টাথিল ভাস্করন নায়ার রাধাকৃষ্ণন এবং বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ। মাটির নিচে টানেল বোরিং মেশিনটিকে ৫ মিটার এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছে আদালত।  উল্লেখ্য, বউবাজারে বিপর্যয়ের ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্পের স্থগিতাদেশ জারি করেছে কলকাতা হাইকোর্ট। আদালত সাফ জানিয়ে দিয়েছে,  বিশেষজ্ঞদের রিপোর্ট না দেখে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো নিয়ে কোনও নির্দেশ দেওয়া হবে না।