বিশ্বভারতীর পৌষমেলা প্রাঙ্গনে পাঁচিল দেওয়ার কাজের ওপর কোনোও স্থগিতাদেশ দিল না কলকাতা হাইকোর্ট। প্রধান বিচারপতি টিবিএন রাধাকৃষ্ণন এবং বিচারপতি শম্পা সরকারের ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়েছে, রাজ্য সরকার চাইলে আদালত নিযুক্ত কমিটির কাছে কাজ বন্ধের জন্য আবেদন জানাতে পারে।  এদিকে কমিটির সদস্যপদ থেকে অব্যাহতি চাইলেন রাজ্যের  এডভোকেট জেনারেল (এজি) কিশোর দত্ত। আদালত এজি'র পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছে।  

শোক প্রকাশ করে মুখ্য়মন্ত্রী জানতে পারলেন মন্ত্রী এখনও বেঁচে

বিশ্বভারতীর পৌষমেলা প্রাঙ্গনে পাঁচিল তোলাকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি ধুন্ধুমার বাধে। কলকাতা হাইকোর্ট স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে মামলা দায়ের করে। আদালত একটি কমিটি গড়ে দেয়, যে কমিটি বিশ্বভারতীর জমি চিহ্নিত করে সেখানে কাঁটাতার দেবে৷ কমিটি পৌষমেলা প্রাঙ্গন পাঁচিল তোলার কাজ শুরু করে। কিন্তু বিক্ষুব্ধ জনতা এর প্রতিবাদ করে৷ ফের শুরু হয় গোলমাল। 

দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রীকে অশ্লীল মন্তব্য, প্রতিবাদ করলে প্রতিবেশী দাদাকে মারধর

প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে রাজ্যের এডভোকেট জেনারেল আবেদন জানিয়েছিলেন কাজ যাতে বন্ধ রাখা হয়৷ কিন্তু আদালত  রাজ্যের আবেদন খারিজ করে দেয়। তবে রাজ্যকে আদালত জানায়, আদালত নিযুক্ত কমিটির কাছে আবেদন জানাতে পারে সরকার কাজ বন্ধের জন্য৷ এদিকে রাজ্যের অতিরিক্ত এডভোকেট জেনারেল অভ্রতোষ মজুমদার বলেন, বিশ্বভারতীর ঐতিহ্যগত এবং পরিবেশগত কারণে পৌষমেলা প্রাঙ্গন পাঁচিল তোলা উচিত নয়।

মোদীর মন্ত্রিসভায় রদবদল, বাংলা থেকে জায়গা পেতে পারেন তিন সাংসদ