সারদা কাণ্ডে দ্রুত তদন্ত সারতে চায় সিবিআই। গত কয়েক মাসে নাটকীয় ভাবে এগিয়েছে এই তৎপরতা। সিবিআই-এর গতিবেগ নাভিশ্বাস তুলে দিয়েছে রাজীব কুমাররে। তলব করা হয়েছে দিলীপ হাজরা-সহ আরও অনেক বাঘা অফিসারকে। এই গতিপ্রকৃতিই পরিষ্কার বুঝিয়ে দেয়, গোটা ঘটনাটার নিষ্পত্তি চাইছে সিবিআই। আরও একবার ঘটনা পরম্পরা সে কথাই বুঝিয়ে দিল। 

সারদা কাণ্ডের  তদন্তকারী অফিসার ফনিভূষণ করণ অবসর নিয়েছিলেন  গত ডিসেম্বর মাসে। ফের তাঁকেই ফিরিয়ে আনল সিবিআই। তাঁকে উপদেষ্টা হিসেবে আবার নিয়োগ করা হল সিবিআই-এর তরফে। সূত্রের খবর, এক বছরের জন্য তাঁকে নেওয়া হল। এর থেকেই প্রমাণ, সিবিআই-এর নিজস্ব ব্লু প্রিন্ট তৈরি, সংশ্লিষ্ট অফিসাররা জানেন এক বছরের মধ্যে এই  তদন্ত গুটিয়ে ফেলতে পারবেন।বলাই বাহুল্য সারদার তদন্তে শুরু থেকেই ছিলেন ফণিভূষণ করণ।  তিনি নিয়ম মোতাবেক অবসর নেন গত ডিসেম্বরে। এবার তাঁকে অবসর ভেঙেই আবার নিয়োগ করা হলো চুক্তিভিত্তিক ভাবে। সূত্রের খবর, সিবিআই সারদা-সহ যে সমস্ত বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থার তদন্ত করছে তা যাতে দ্রুত গুটিয়ে আনা যায় সেই উদ্যেগ নিয়েছে। ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে নারদা তদন্তও।

প্রসঙ্গত গত মাস কয়েকে বহু টানাপোড়েন হয়েছে সারদা কাণ্ডে। প্রথম তদন্তকারী অফিসার প্রভাকর নাথ থেকে শুরু করে, দিলীপ হাজরা, অর্ণব ঘোষ প্রত্যেককে  জিজ্ঞাসাবাদ করেছে সিবিআই। পাল্লা দিয়ে চলেছে রাজীব কুমারের খোঁজ। সমস্ত ঘটনাপরম্পরা মিলিয়েই সিবিআই ফণিভূষণকে ফেরানোর ছকে গিয়েছে। অনেকেই মনে করছেন, এতে শাসককে চাপে রাখা যাবে।