রাজ্য়ের বর্তমান করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ফের রাজ্য়ের মুখ্য়সচিব রাজীব সিনহাকে চিঠি দিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। চিঠিতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব অজয় ভাল্লা লিখেছেন, পশ্চিমবঙ্গের সাতটি জেলা পর্যবেক্ষণ করে কেন্দ্রের পাঠানো আন্তঃমন্ত্রক টিমের রিপোর্টের ভিত্তিতেই তিনি এই চিঠি লিখছেন। তাতে বাংলার করোনা পরিস্থিতি নিয়ে তিনি  উদ্বিগ্ন।

সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখায় বাড়ছে সংক্রমণ, কলকাতা নিয়ে 'সাফাই' ফিরহাদের..

তাঁর মতে,লকডাউন চলাকালীন হাওড়ার টিকিয়াপাড়ায় যে ঘটনা ঘটেছে, তা অভিপ্রেত ছিল না। কেন্দ্রীয় টিম ও সাংবাদ মাধ্য়মের রিপোর্ট জানিয়েছে যে কলকাতা ও হাওড়ায় নির্দিষ্ট এক গোষ্ঠী লকডাউনের শর্ত ভাঙছে। এমনকী করোনা যোদ্ধা  পুলিশের উপরেও  হামলা হয়েছে। এই পরিস্থিতি কঠোর ভাবে দমন করা উচিত। তা ছাড়া স্বাস্থ্য কর্মীদের কোথাও কোথাও এক ঘরে করে দেওয়া হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। সেই সঙ্গে কোয়ারেন্টাইনেরও পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেই। 

মেয়র থেকে প্রশাসক পদে ফিরহাদ!আদালতে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিলীপের

এই বলেই থেমে থাকেননি তিনি। ভাল্লা বলেছেন,  জনসংখ্যার নিরিখে কম সংখ্যক টেস্ট হচ্ছে বাংলায়। সেইসঙ্গে কোভিড আক্রান্তদের মধ্যে মৃত্যুর হার দেশের মধ্যে সবথেকে বেশি পশ্চিমবঙ্গে(১৩.২ শতাংশ)। পশ্চিমবঙ্গে সংক্রমণ ছড়ানোর উপর নজরদারি যে দুর্বল, টেস্টিং যে কম হচ্ছে এটা তারই প্রতিফলন। সুতরাং টেস্ট আরও বাড়াতে হবে। 

কলকাতা পুরসভার প্রশাসক পদে ফিরহাদ ! ১৪ জনের প্রশাসক বোর্ড গঠনের সম্ভাবনা... 

বুধবারই নবান্নে রাজ্য়ের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বিস্তারিত জানান স্বরাষ্ট্রসচিব আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায়। তিনি বলেন,সব মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত রাজ্যে ৩০ হাজার ১৪১টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। স্বরাষ্ট্রসচিব জানান,এক মাস আগে রাজ্যে টেস্টের সংখ্যা ছিল দিনে গড়ে ২৫০টি । এখন সেটা বেড়ে পেরিয়েছে ২০০০। তিনি আশাবাদী,  সংখ্যাটা আড়াই হাজার ছাড়িয়ে যাবে।  এই কাজ করতে ল্য়াবের সংখ্যাও বেড়েছে।  একটি ল্যাবেরটরি দিয়ে যে লড়াই শুরু হয়েছিল, সেই ল্যাবরেটরির সংখ্যা এখন ১৫। এর মধ‍্যে ১০টা সরকারি ও ৫টা বেসরকারি।