ফিরহাদ হাকিমকে কলকাতা পুরসভার প্রশাসক পদে বসানোর সরকারি বিজ্ঞপ্তি এখনও জারি হয়নি। তবে এই খবর প্রকাশ হতেই রাজ্য় সরকারের বিরুদ্ধে সরব হলেন বিজেপির রাজ্য় সভাপতি দিলীপ ঘোষ। মেদিনীপুরের সাংসদ বলেন, ফিরহাদকে প্রশাসক করা খুবই অন্য়ায় কাজ হল। এ বিষয়ে আমরা আইনের সাহায্য় নিতে পারি।

'টিকিয়াপাড়ার' মতো ঘটনা কাম্য় নয় , মুখ্য়সচিবকে কড়া চিঠি কেন্দ্রের

এই বলেই অবশ্য থেমে থাকেননি বিজেপির রাজ্য় সভাপতি। দিলীপবাবু বলেছেন,  এটা ওদের আগে থেকেই ভাবনা ছিল। এর আগেও অনেক পুরসভা নির্বাচন করায়নি। এখন করোনার অজুহাতে এইসব করছে। ফিরহাদকে প্রশাসক করা খুব অন্যায় হল। আসলে নিজেদের দলের শাসন কায়েম রাখতে চায়‌। তাই ভোট করতে ওদের এত ভয়। আমরা আইনের সাহায্য নিতে পারি।

'টিকিয়াপাড়ার' মতো ঘটনা কাম্য় নয় , মুখ্য়সচিবকে কড়া চিঠি কেন্দ্রের.

মেয়াদ ফুরোনো পদে থাকতে পারবেন না, তাই কলকাতা পুরসভার মেয়র পদ থেকে সরে  যেতে হবে পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে। যদিও প্রশাসক হিসাবে কলকাতা পুরসভার মাথা হতে চলেছেন ফিরহাদ। সূত্রের খবর,'রিমুভ্যাল অফ ডিফিকাল্টিস অ্যাক্ট' মেনে তাকেই দায়িত্বে আনা হচ্ছে। যা ঘিরে ফের একবার করোনা আবহে সরগরম হতে চলেছে রাজ্য় রাজনীতি। 

কলকাতা পুরসভার প্রশাসক পদে ফিরহাদ ! ১৪ জনের প্রশাসক বোর্ড গঠনের সম্ভাবনা.

সূত্রের খবর, সব মিলিয়ে  ১৪ জনের প্রশাসক বোর্ড গঠন করা হবে। মেয়র ছাড়াও ডেপুটি মেয়র ও মেয়র পারিষদরা সবাই থাকবেন সেই বোর্ডে। বৃহস্পতিবারই সেই মর্মে নির্দেশিকা জারি করা হবে।  ৭ মে মেয়র হিসেবে ফিরহাদ হাকিমের মেয়াদ শেষ হচ্ছে। তারপরই ৮ মে থেকে বসবেন প্রশাসক। আর প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব নেবেন বর্তমান কলকাতা পুরসভার মেয়র ফিরহাদ হাকিম। তবে শুধু কলকাতা পুরসভা নয়, রাজ্যের আরও যে ৯৩টি পুরসভা, যেখানে ভোট হওয়ার কথা ছিল, সেখানেও প্রশাসক বসানো হবে।