Asianet News BanglaAsianet News Bangla

Alapan Bandyopadhyay: 'কেউ বাঁচাতে পারবে না', আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায়কে খুনের হুমকি, তদন্তে গোয়েন্দা

রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায়কে খুনের হুমকি  চিঠি।  চিঠির কপি নিয়ে ইতিমধ্য়েই তদন্তে নেমেছে কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ। 

Chief Advisor of WB Alapan Bandyopadhyay got death threats Letter RTB
Author
Kolkata, First Published Oct 27, 2021, 11:13 AM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায়কে (Alapan Bandyopadhyay) খুনের হুমকি। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের ( Chief Advisor of WB Govt) মুখ্য উপদেষ্টা আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায়কে  স্পিড পোস্টে খুনের হুমকি লেখা চিঠি পাঠানো হয়েছে। উল্লেখ্য, আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায়ের স্ত্রী সোনালি চক্রবর্তী বন্দ্য়োপাধ্যায় (Sonali Chakravarty Bondhopadhyay) পেশায় কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য । খুনের দেওয়া ওই চিঠি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের (Calcutta University) ঠিকানায় পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন, Swasthya Sathi: ভর্তির পর রোগ নির্ণয়ে সর্বোচ্চ খরচ ৫ হাজার, স্বাস্থ্যসাথীর নয়া নির্দেশিকা রাজ্য়ের

  চিঠিতে লেখা রয়েছে, আপনার স্বামীকে খুন করা হবে। কেউ আপনার স্বামীর জীবন বাঁচাতে পারবে না। চিঠিতে গৌর হরি নামে এক ব্যক্তির স্বাক্ষরও রয়েছে। কেয়ার অব মহুয়া ঘোষ। যিনি রাজাবাজার সায়েন্স কলেজের ক্য়ামিক্যাল টেকনোলজি বিভাগে কর্মরত রয়েছেন। চিঠি পাওয়ার পরেই পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে বন্দ্য়োপাধ্যায় পরিবার। এই ঘটনায় নড়ে বসেছে পুলিশ প্রশাসন। চিঠির কপি নিয়ে ইতিমধ্য়েই তদন্তে নেমেছে কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ। চিঠির প্রেরকের নাম ভুঁয়ো বলেই অনুমান করা হয়েছে। আসল প্রেরকের সন্ধানে গোয়েন্দারা।

আরও পড়ুন, Covid-19: লাফিয়ে বাড়ছে করোনা, সোনারপুরে ৩ দিনের লকডাউন ঘোষণা প্রশাসনের

অপরদিকে, সেন্ট্রাল অ্যাডমিনিস্ট্রিটিভ ট্রাইবুনালের প্রিন্সিপাল বেঞ্চের একটি নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে ইতিমধ্যেই কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায়। উল্লেখ্য, কলাইকুণ্ডায় প্রধানমন্ত্রী মোদীর বৈঠকে গরহাজির থাকার অভিযোগ ওঠে রাজ্যের তৎকালীন মুখ্যসচিব  আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে।কেন্দ্রের অভিযোগ, কলাইকুন্ডায় পৌঁছে নরেন্দ্র মোদীকে রাজ্যের আমলাদের জন্য ১৫ মিনিট অপেক্ষা করতে হয়েছিল। এরপর মুখ্যসচিবকে ফোন করে জানতে চাওয়া হয় যে তিনি বৈঠকে যোগ দিতে চান কি না। কিন্তু, মুখ্যসচিব ও মুখ্যমন্ত্রী দু'জনেই বৈঠক কক্ষে ঢোকার পর প্রধানমন্ত্রীর হাতে ক্ষয়ক্ষতির খতিয়ান সংক্রান্ত একটি ফাইল তুলে দিয়েছিলেন। আর তারপরই বৈঠক না করে ওই ঘর থেকে বেরিয়ে গিয়েছিলেন।এরপরেই ময়দানে নামে কেন্দ্র। প্রথমে শো কজ করে, পরে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগও আনা হয়  আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। তদন্ত শুরু করে কর্মী বর্গ মন্ত্রক। আর এই তদন্ত প্রক্রিয়া খারিজের দাবিতে সম্প্রতি সেন্ট্রাল অ্যাডমিনিস্ট্রিটিভ ট্রাইবুনালের কলকাতা বেঞ্চে মামলা করেন  আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায়। 

আরও দেখুন, বিরিয়ানি থেকে তন্দুরি, রইল কলকাতার সেরা খাবারের ঠিকানার হদিশ  

আরও দেখুন, কলকাতার কাছেই সেরা ৫ ঘুরতে যাওয়ার জায়গা, থাকল ছবি সহ ঠিকানা  

আরও দেখুন, মাছ ধরতে ভালবাসেন, বেরিয়ে পড়ুন কলকাতার কাছেই এই ঠিকানায়  

আরও পড়ুন, ভাইরাসের ভয় নেই তেমন এখানে, ঘুরে আসুন ভুটানে  

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios