সবজি কিনতে বাজারে নেমেছিলেন টোটো চালক। পাশেই বসে ছিল ছোট্ট মেয়ে। চালক টোটো থেকে নামতেই এক্সেলেটরে চাপ দিল মেয়ে। নিমেষেই ঘাতক টোটো প্রাণ কাড়ল আড়াই বছরের শিশুর। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে নিউটাউনে ।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, ঘটনার সময় মায়ের সঙ্গে বাজারের রাস্তাতেইে হেঁটে যাচ্ছিল ওই শিশু। টোটো চালকের পাঁচ বছরের মেয়ের হাতে পরে টোটোর চাবি। টোটোর চাবি অন করে এক্সালেটার বাড়িয়ে দেয় ছোট্ট মেয়ে। নিমষেই ঘটে যায় বিপত্তি। হেঁটে যাওয়া শিশুকে ধাক্কা মারে ঘাচক টোটো। ছিটকে পড়ে মাথায় চোট লাগে শিশুর। স্থানীয়রা উদ্ধার করে বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে মৃত বলে ঘোষণা করেল চিকিৎসকরা। 

ঘটনাটি মঙ্গলবার সকালে নিউটাউন এডি সি পি অফিসের সামনে ঘটে এই দুর্ঘটনা। মৃত শিশুর নাম আয়ুশ রায়চৌধুরী (২.৫ বছর)। নিউটাউনের এক আবাসনের বাসিন্দা আযুশ। এই ঘটনায় টোটো চালককে গ্রেফতার করেছে নিউটাউন থানার পুলিশ। ধৃত চালকের নাম অজয় রায়। তার বিরুদ্ধে বেপরোয়া গাড়ি চালানো, অবহেলায় মৃত্যু-সহ নানা অভিযোগে মামলা রুজু করা হয়েছে। বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে টোটোটিও।

পুলিশের কাছে এজয় জানিয়েছে, ওই দিন সকালে নিউটাউনের ওই আবাসনে যাত্রীদের পৌঁছে দিতে গিয়েছিলেন তিনি। নিজে নিউটাউনের রামকৃষ্ণপল্লিতে থাকেন অজয়। তাঁর পাশেই বসেছিল বছর পাঁচেকের মেয়ে পিয়াও। যাত্রীদের নামিয়ে দেওয়ার পর, রাস্তার পাশে টোটো থামিয়ে রেখেই শাকসব্জি কিনছিলেন তিনি। কিন্তু, গাফিলতিবশত গাড়িতে চাবি দেওয়া অবস্থাতেই নেমে যান অজয়। ঠিক সেই সময় থেমে থাকা গাড়ির চাবি ঘুরিয়ে অ্যাক্সিলারেটরে চাপ দিয়ে ফেলে অজয়ের মেয়ে পিয়া। যাতে প্রাণ যায় ওই শিশুর।