বামাদেরে ডাকা ধর্মঘটের দিনে বিজেপি-পুলিশ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটল। বিজেপি কর্মীদের পুলিশের ধস্তাধস্তির জেরে ব্যাপক উত্তেজনা সৃষ্টি হয় এলাকায়। মাঝেরহাট ব্রিজ খোলার দাবিতে আজ মাঝেরহাট-তারাতলায় ব্রিজের তলায় বিক্ষোভ দেখায় বিজেপি সমর্থকরা। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বিক্ষোভকারীদের বাধা দিলে ব্যাপক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। 

আরও পড়ুন-সরকারি বাস আটকে রাস্তায় বামকর্মীদের ক্রিকেট খেলা, যানজট সামাল দিতে নামল পুলিশ বাহিনী

জানাগেছে, মাঝেরহাট ব্রিজের কাজ নিয়ম মেনে হয়নি বলে অভিযোগ তোলে বিজেপি। সেকারণে মাঝেরহাট ব্রিজ খুলে দেওয়ার দাবিতে বৃহস্পতিবার মাঝেরহাট-তারাতলা ব্রিজের তলায় বিক্ষোভ দেখাতে শুরু বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে তাদের বাধা দেয় বলে অভিযোগ। সে সময় পুলিশের সঙ্গে বিজেপি কর্মীদের ধস্তাধস্তি শুরু হয়। বিজেপি কর্মীদের আরও বিক্ষোভের জেরে কার্যত খণ্ডযুদ্ধ বেঁধে যায়। মাঝেরহাট ব্রিজের তলায় ওই বিক্ষোভের যাওয়ার কথা ছিল বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়র। তার আগেই বিজেপি কর্মীদের পুলিশ ঘটনাস্থলে কয়েকজন বিজেপি কর্মীকে গ্রেফতার করে। বিজেপি কর্মীদের উপর পুলিশ লাঠিচার্জ করে বলে অভিযোগ। এর জেরে ধুন্ধুমার কাণ্ড ঘটে যায় এলাকায়।

আরও পড়ুন-বামেদের ডাকা ধর্মঘটে দফায় দফায় ট্রেন অবরোধ, চরম ভোগান্তির মুখে নিত্যযাত্রীরা

মাঝেরহাট ব্রিজের এই ঘটনার তীব্র সমালোচনা করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বৃহস্পতিবার নদিয়ার আসাননগরে জনসভায় গিয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে সরব হন দিলীপ। পুলিশকে সমালোচনা করে তিনি বলেন, পুলিশের সামনেই আমার গাড়িতে হামলা হয়েছে। পুলিশ নীর দর্শক। তাই পুলিশের উপর আমাদের কোনও ভরসা নেই।