বৃহস্পতিবার ট্রেড ইউনিয়নদের ডাকে দেশজুড়ে বনধ। এদিকে বাংলায় বামেদের ডাকা ধর্মঘটের জেরে দফায় দফায় ট্রেন অবরোধ বিভিন্ন জায়গায়। এর ফলে বিপর্যস্ত লোকাল ট্রেন পরিষেবা। পূর্ব রেল সূত্রে খবর, শিয়ালদা দক্ষিণ শিয়ালদা মেন এবং হাওড়া ডিভিশনে দফায় দফায় ট্রেন অবরোধ হয়েছে। 

আরও পড়ুন, নিউটাউনে আগুন জ্বালিয়ে ধর্মঘটে বামেরা, অশান্তির আশঙ্কায় শহরে অতিরিক্ত ৪৫০০ পুলিশ

 

ট্রেন অবরোধ শহর ও শহরতলিতে

একেবারে সকালের দিকে শিয়ালদা দক্ষিণ শাখা লক্ষীকান্তপুর শাখায় অবরোধ করেন বিক্ষোভকারীরা। একইসঙ্গে ওভারহেড তারে কলাপাতা জড়িয়ে দিয়ে ট্রেন চলাচল বিঘ্নিত করার চেষ্টা করেন ধর্মঘট সমর্থনকারীরা। ভোর সাড়ে পাঁচটা নাগাদ অবরোধ করা হয় মথুরাপুর রেল স্টেশনে। এছাড়া, শিয়ালদা লক্ষীকান্তপুর শাখার দক্ষিণ বারাসাত রেল স্টেশনে সকালে অবরোধ করেন বিক্ষোভকারীরা। এর ফলে ব্যাহত হয় লোকাল ট্রেন পরিষেবা। এছাড়া নিউ ব্যারাকপুর এবং সংগ্রামপুর স্টেশন অবরোধ করেন সমর্থনকারীরা। শহরতলির পাশাপাশি শহরের মধ্যে ঢাকুরিয়া স্টেশনে রেল অবরোধ হয়।

 

আরও পড়ুন, ধর্মঘটের ভোরে বিধ্বংসী আগুনে ভষ্মীভূত বিজেপির পার্টি অফিস,অভিযোগের তীর বিরোধী দলের দিকে

 

চরম ভোগান্তির মুখে নিত্যযাত্রীরা


অন্যদিকে শিয়ালদা মেনে শিয়ালদা নৈহাটী শাখার ব্যারাকপুর স্টেশন অবরোধ করেন সমর্থনকারীরা। অবরোধ হয় দমদম ক্যান্টনমেন্ট, বেলঘড়িয়া, ঘোলা, ইছাপুর, পলতা সহ একাধিক রেল স্টেশনে। হাওড়া ডিভিশনে হাওড়া ব্যান্ডেল শাখা ব্যান্ডেল, শ্রীরামপুর স্টেশনে অবরোধ করে বিক্ষোভকারীরা। সকালে অবরোধ হয় হাওড়া তারকেশ্বর শাখার নালিকুল রেলস্টেশনে। দফায় দফায় এই অবরোধের ফলে চূড়ান্ত সমস্যায় পড়েন নিত্যযাত্রীরা। অন্যান্য দিনের থেকে যাত্রী সংখ্যা কম থাকলেও যারা বাইরে বেরিয়েছে। রেল অবরোধের ফলে দীর্ঘক্ষন বিভিন্ন স্টেশনে ট্রেনের মধ্যে কিংবা স্টেশনে অপেক্ষা করতে হয় তাদের।