'আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায় চ্যাপ্টার ওভার,' বুধবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে একাধিক বিষয়ে বক্তব্যের পর সদ্য প্রাক্তন মুখ্য সচিব নিয়ে কোনও মন্তব্য করবেন না বলে জানিয়েদিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়।

আরও পড়ুন, পিছনে পড়ে ভারত-পাকিস্থান, দক্ষিণ এশিয়ার উন্নয়নে নতুন তারকা বাংলাদেশ 

 

 

সোমবার সকাল দশটাতেই দিল্লিতে দিল্লিতে নর্থ ব্লকে কর্মীবর্গ বিভাগে রিপোর্ট  করার কথা ছিল রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায়ের। কিন্তু শেষ অবধি দিল্লি যাননি তিনি। ওইদিন দুপুরেই কেন্দ্রে নির্দেশ সত্ত্বেও আলাপনকে নবান্নে ঢুকতে দেখা যায়। ওই আবার দুপুরের আগেই 'আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায়কে ছাড়ছে না রাজ্য' এই মর্মে এবার প্রধানমন্ত্রী মোদীকে চিঠি লিখে পাঠিয়েছেন মমতা। প্রধানমন্ত্রী মোদীকে দীর্ঘ ৫ পাতার চিঠি পাঠিয়েছিলেন সেদিন মমতা। কে আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায়ের রিলিজ অর্ডার দিতে পারছে না , তাও চিঠিতে জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। চিঠির শেষে প্রধানমন্ত্রী মোদীর কাছে মমতার অনুরোধ জানান, 'আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায়কে দিল্লিতে কাজে যোগ দেওয়ার নির্দেশ প্রত্যাহার করুক কেন্দ্র।' কিন্তু শেষ অবধি  এরপরেই বিকেল পাঁচটার কিছুক্ষণ আগে রাজ্যকে পালটা চিঠি দেয় কেন্দ্র। সেখানে মুখ্যসচিবকে অবিলম্বে কেন্দ্রের সঙ্গে যোগ দিতে বলা হয়। কিন্তু ততক্ষণে জল অন্য দিকে মোড় নিয়েছে।

 

 

আরও পড়ুন, ভ্যাকসিনের ঘাটতি পূরণে আইনি রক্ষাকবচ পেতে পারে কি ফাইজার-মর্ডানা, কী বলছে সূত্র 

সোমবার  গোধূলি লগ্নে মমতা ঘোষণা করেন,  মুখ্যমন্ত্রীর মুখ্য উপদেষ্টা হচ্ছেন আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায়। মুখ্যসচিব এইচ কে দ্বিবেদী। এবং ইতিমধ্যেই মাধ্যমিকের তৃতীয় স্থান অধিকারী আর ৮৭-এর আইএএস এখন, মুখ্যসচিব পদ থেকে অবসর নিয়ে  মুখ্যমন্ত্রীর মুখ্য উপদেষ্টা পদ সামলাচ্ছেন। মাঝে বয়ে গিয়েছে গঙ্গায় অনেক জল। তাই এদিন আর কথা বাড়াতেই চাননি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়।