তৃণমূল কংগ্রেস নেতা তথা সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ি থেকে বেরিয়ে গেল সিবিআই-এর তদন্তকারী আধিকারিকরা। সাড়ে এগারোটারও পরে তাঁরা হরিশচন্দ্র স্ট্রিটের শান্তিনেকেতনে আসে সিবিআই-এর ৯ আধিকারিকের একটি দল। প্রায় দেড়় ঘণ্টা পরে তাঁরা বেরিয়ে যান শান্তিনিকেতন থেকে। সূত্রের খবর মাত্র দেড়ঘণ্টা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী রুজিরাকে জেরা করে সিবিআই। মূলত টাকার উৎস নিয়েই খোঁজ খবর নেয় তাঁরা। পাশাপাশি রুজিরার পাসপোর্ট রয়েছে কিনা জানতে চাওয়া হয়। একই সঙ্গে জানতে চাওয়া হয় তাঁর নাগরিকত্ব নিয়ে। 

কয়লাকাণ্ডে জেরা হয় রুজিরাকে।  তাঁকে জিজ্ঞাবাদের জন্য আট পাতার প্রশ্নপত্র তৈরি করা হয়েছিল।সূত্রের খবর, সিবিআই আধিকারিকদের মূল লক্ষ্যই ছিল বিদেশি অ্যাকাউন্ট সম্পর্কে তথ্য, বিদেশি অ্যাকাউন্টগুলি কী করে হ্যান্ডল করা হত সেই সম্পর্কে তথ্য জোগাড় করা। পাশাপাশি  রুজিরার অ্যাকাউন্ট থেকে কী ভাবে তাঁর বোনের অ্যাকাউন্ট টাকা পাঠান হত তাও জানার উদ্দেশ্য ছিলি সিবিআইএর। অ্যাকাউন্টগুলির লেনদেনের উৎস কয়লাকাণ্ডে অন্যতম মাফিয়া লালর টাকা সম্পর্কেও রুজিরাকে জেরা করতে চেয়েছিল সিবিআই। 

কয়লাকাণ্ডে তৃণমূল নেতা অভিষেকের বাড়িতেই স্ত্রী রুজিরাকে জেরা, তৈরি CBI-এর ৯ সদস্যের দল ...

অভিষেকের বাড়িতে মাত্র ৩ মিনিটের ব্যবধানে মুখ্যমন্ত্রী ও CBI, কয়লাকাণ্ডে জেরা রুজিরাকে ...

এদিন সিবিআই আধিকারিকরা তাঁর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে আসার কিছুক্ষণ আগেই শান্তিনিকেতনে এসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  খুব অল্প সময় তিনি ছিলেন সেখানে। যাওয়ার সময় সঙ্গে করে নিয়ে গিয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মেয়েকে। যে সম্পর্কে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাতনি হয়। কাকতালিয় হলেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বেরিয়ে যাওয়ার মাত্র তিন মিনিটের মধ্যেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে এসেছিল সিবিআইএর ৯ সদস্যের দলটি।