করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন শাসক দলের একাধিক মন্ত্রী,নেতা। কেউ করোনা যুদ্ধে জয়ী হয়েছেন তো হার মেনেছেন বেশ কয়েকজন। এবার খোদ মুখ্য়মন্ত্রীর বাড়িতেই করোনার হানা। নিজেই বাড়ির এই খবর জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

মমতা জানিয়েছেন,বাড়ি গেলে যে ছেলেটি তাঁকে চা দেয়, সেও করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এখন বাড়ি গেলে চা দেওয়ার কেউ নেই। এমনকী করোনা হানি দিয়েছে তাঁর অফিসেও। মুখ্যমন্ত্রীর অফিসে যে ছেলেটি ফোন ধরেন, তিনিও করোনা আক্রান্ত।

রাজ্য়ের করোনা বুলেটিন বলছে,শনিবার বাংলায় করোনা নিয়ে মৃত্যু হয়েছে ৬২ জনের। শুক্রবার এই সংখ্যাটা ছিল ৫৩ জন৷ সব মিলিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা ৫ ১৩২ জন৷ একদিনে যে ৬২ জনের মৃত্যু হয়েছে তার মধ্যে কলকাতারই রয়েছেন ১৩ জন৷ এছাড়াও উত্তর ২৪ পরগনার রয়েছেন ১৯ জন৷ পাশাপাশি দক্ষিণ ২৪ পরগনার ৩ জন, হাওড়ার ৬,হুগলির ৩ ও পশ্চিম বর্ধমানে মারা গিয়ছেন ২ জন৷

একই পরিস্থিতি পূর্ব মেদিনীপুরের। সেখানে করোনা নিয়ে মারা গিয়েছেন ৩ জন৷ পশ্চিম মেদিনীপুরে এই সংখ্যাটা ৬, পুরুলিয়ায় ১, মুর্শিদাবাদে ১, উত্তর দিনাজপুরে ১ জনের৷ এছাড়াও জলপাইগুড়িতে করোনা নিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন  ১, দার্জিলিংয়ে ১, কোচবিহারে ১, আলিপুরদুয়ারেও ১ জন৷ পরিস্থিতি বলছে, দুর্গাপুজোর মুখে প্রতিদিনই বাড়ছে সংক্রমণের সংখ্যা। এছাড়াও অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যাটা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৭ হাজার ৷

গত ২৪ ঘণ্টায় অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যাটা বেড়েছে ২৬৫ জন৷ করোনা বুলেটিনের তথ্য বলছে, ২৭, ১৩০ জন৷ গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ৩,৩৪০ জন৷ শুক্রবার এই সংখ্যাটা ছিল ৩,৩১০ জন৷ সব মিলিয়ে রাজ্যে মোট আক্রান্ত ২,৬৬,৯৭৪ জন৷ তবে বেড়েছে সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা।