দমদম সংশোধনাগারে চালু হল 'রেডিও দমদম'। প্রায় চার হাজার বন্দির এক ঘেয়েমি জীবনের একটু স্বাদ বদলে করার জন্য চালু হল এই রেডিও। রোজ সকাল ৭টা থেকে বিকেল ৫টা অবধি চলবে এই রেডিও স্টেশন। দেশের বিভিন্ন জেলে সক্রিয় এমন 'ইন হাউস' বেতার-ব্যবস্থা। তবে এ রাজ্যে এই প্রথম বার এমন 'ইন্টারনাল রেডিয়ো নেটওয়ার্ক' চালু  দমদম সংশোধনাগারে। যেখানে বন্দিরাই রেডিয়ো-জকি।


গত বছরই আগ্রা, তামিলনাডু ও হায়দরাবাদে একাধিক জেলে চালু হয়েছে এই ব্যবস্থা। এবার দমদম সংশোধনাগারে পথ চলা শুরু 'রেডিয়ো-দমদম'-র। রেডিয়ো দমদম -এর রেডিয়ো জকি হিসেবে প্রশিক্ষণ শেষ করেছে পাঁচ সাজাপ্রাপ্ত বন্দি। তাদের সহযোগী হিসেবে থাকবে আরও পাঁচ বন্দি। রেডিয়ো জকির তালিকায় রয়েছে তুহিন রায়, পীযূষ ঘোষ, জয়ন্ত সিংহ, জিনিয়া নন্দী এবং মনুয়া মজুমদার। অপর দিকে, জেলের অন্দরে মহিলাদের ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় কর্ত্রীর ভূমিকায় দেখা গিয়েছে মনুয়াকে। রেডিয়োতে তার গলাও শুনবে চার হাজার বন্দির দমদম জেল।

আরও পড়ুন, ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে অবস্থান বিক্ষোভ, মুখ্য়মন্ত্রীর দ্বারস্থ সাউথ পয়েন্টের অভিভাবকরা

কারা-সূত্রের খবর, বন্দিদের বিনোদনে প্রত্যেক দিন ১০ ঘণ্টা চালু থাকবে  রেডিয়ো দমদম। সকালে, দুপুরে, বিকেলে বিভিন্ন স্লটে আলাদা আলাদা অনুষ্ঠান পরিচালনা করবেন ওই পাঁচ আরজে। তবে ভবিষ্য়তে রেডিয়ো জকির সংখ্যা বাড়বে বলেই মত কারা দফতরের কর্তাদের। জেলের ভিতরের প্রথা অনুযায়ী, সাজাপ্রাপ্ত বন্দিরাই যে কোনও স্থায়ী কাজে সুযোগ পান। ইতিমধ্যেই একটি বেসরকারি রেডিয়ো স্টেশনের এক রেডিয়ো-জকির অধীনে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন ওই বন্দিরা। গত কয়েক মাস সংশোধনাগারে এসে বন্দিদের প্রশিক্ষণ দিয়েছেন ওই রেডিয়ো স্টেশনের কর্মী-শিল্পীরা। বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী সাজাপ্রাপ্ত বন্দিদের মধ্যে থেকেই প্রাথমিক ভাবে ১০ জনকে বাছাই করে প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরু হয়েছিল। তাঁদের মধ্যে থেকে চূড়ান্ত ভাবে পাঁচ জনকে বেছে নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন, করোনা ভাইরাসের থাবা এবার কলকাতাতে, হাসপাতালে ভর্তি যাদবপুরের প্রৌঢ়

সূত্রের খবর, রেডিয়ো দমদমের সিস্টেমে ইতিমধ্য়েই ৩৫০০ হাজার গানের স্টক করা হয়েছে। বিভিন্ন সিনেমার গানের সঙ্গে ভক্তিমূলক গানও রয়েছে। যেগুলি বিভিন্ন সময় ঘুরিয়ে ফিরিয়ে চালানো হবে। সব ওয়ার্ডে, সেলে মাইক লাগানো হয়েছে। যাতে সব বন্দিই রেডিয়োর অনুষ্ঠান শুনতে পারেন। অন্য়ান্য় রেডিয়ো স্টেশনের মতো ভবিষ্যতে রেডিয়ো দমদমেও বন্দিদের অনুরোধ মতো গান বাজানো, স্বাস্থ্যের মতো একাধিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে অনুষ্ঠানের পরিকল্পনাও রয়েছে। কারামন্ত্রী উজ্জ্বল বিশ্বাস বলেন,  গান মানুষের মন ভালো রাখে। তাই সারাদিন বাজবে বিভিন্ন গান। কথা বলবে আবাসিক আর জে রাই। মোট ১০০টি স্পিকার গোটা সংশোধনাগারে বসানো হয়েছে যাতে প্রত্যেকে অনুষ্ঠান শুনতে পায়।