ঢাকে পড়ে গিয়েছে কাঠি। শরতের নীল আকাশ আর কাশ ফুল জানান দিচ্ছে মা আসছে। মা আসার সেই আনন্দ মেতে উঠেছে শহর কলকাতা। সেই সঙ্গে শুরু হয়ে গিয়েছে পুজোর প্রস্তুতিও। উত্তরের ঐতিহ্য মন্ডিত পুজো দমদম তরুণ দলের কাজও পুরোদমে শুরু হয়ে গিয়েছে। এ বছরও একটি নতুন ও অভিনব ভাবনা দিয়ে নিজেদের পুজো প্যান্ডেল সাজাতে চলেছে উত্তর কলকাতার দমদম তরুণ দল। এ বছর তাদের থিম 'বৃহন্নলা'।

আরও পড়ুন এবার 'প্রতিচ্ছবি' নিয়ে আসতে চলেছে সন্তোষপুর এভিনিউ সাউথ

এই বছর ৪২ বছরে পা দিল এই পুজো। প্রতি বছরই তারা নিত্য নতুন ভাবনা নিয়ে আসে। এবারও তারা আলোকপাত করতে চলেছে সমাজের এক অন্ধকার দিকের ওপর। দিনে রাতে যাদের আমরা ট্রেনে, বাসে, রাস্তায় কর্কশ সুর তুলে লোকের সামনে হাত পাততে দেখি, সেই 'বৃহন্নলা'দের কাহিনি তুলে ধরতে চলেছে দমদম তরুণ দল। স্বাভাবিক জীবনের আনন্দ থেকে তাঁরা অনেকটাই ব্রাত্য। সে দুর্গাপুজো হোক বা অন্য কোনও উৎসব। 'বৃহন্নলা'রা এরা সমাজে ব্রাত্য রয়ে যান। এই বিভেদ যাতে মুছে যায়, সেইজন্যই এই তাদের  পুজোর থিম। শুধু থিম নয় তারা পুজোর আয়োজনেও থাকছেন তাঁরা। হেনা, মধু এরা মিশে গিয়েছেন পুজোর সঙ্গে। তাঁরা পুজোর কটা দিন পাড়াতেই থাকেন। ছেলে, মেয়ে এই সবকিছুর বিভেদ ভুলে তাঁরা একাত্ম হয়ে গিয়েছেন দমদম তরুণ দলের পুজোর সঙ্গে। তাক লাগানো এই মণ্ডপটির বাজেট ৪০ লক্ষ। 
 এই বছর তাদের প্রতিমার দায়িত্বে রয়েছেন শ্রী সনাতন দিন্দা ও পুজো পরিকল্পনার দায়িত্বে রয়েছেন অনির্বাণ। আবহ সঙ্গীতে শতদল। 

আরও পড়ুন নাম লেখাননি এখনও, দেরি না করে অংশ নিন এশিয়ানেট নিউজ শারদ সম্মান ২০১৯-এ

গত বছর তাদের মণ্ডপে থিম ছিল 'আবাহন'। এ বছর ও তাঁরা আশাবাদী তাঁদের পুজো নিয়ে। এই চমৎকার বিষয়টি সচক্ষে দেখতে এবং অনুভব করতে আসতেই হবে দমদম তরুণ দলের পুজোতে ।যেখানে বৃহন্নলাদের দুর্দশা থেকে জিতে যাওয়ার গল্প আপনার নজর কাড়তে বাধ্য।ক্লাবটির ঠিকানা হল ৬০, শ্যামনগর রোড, কলকাতা।