মাজেরহাট ব্রিজ দেরিতে খোলা নিয়ে এবার রাজ্য সরকারকে দায়ী করল রেল। বিজেপির বিক্ষোভের পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায় দাবি করেন রেলের গড়িমসিতেই ব্রিজ চালু করা সম্ভব হয়নি। তবে এবার ব্রিজের কাজ থমকে যাওয়ার জন্য পাল্টা রাজ্য সরকারকেই দায়ী করলো রেল।

 

আরও পড়ুন, 'মন্দিরে চুম্বন আপত্তি হলে খাজুরাহোর গায়ে ওগুলি কী', বিজেপিকে তোপ মহুয়ার

 


 

 'তৈরি ব্রিজে ২৯ টি ভুল'


মাজেরহাট ব্রিজ দেরিতে খোলা নিয়ে এবার রাজ্য সরকারকে দায়ী করলো রেল।  এই ব্রিজ খোলা নিয়ে  বৃহস্পতিবার বিজেপির বিক্ষোভ সমাবেশে উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল। পুলিশ বিজেপি সমর্থকদের মধ্যে খন্ড যুদ্ধ লাগে। তারপর মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস অভিযোগ করে, রেলের পারমিশন না দেওয়ার জন্য এই ব্রিজ খোলা যায়নি। কিন্তু এবার রেল পরিষ্কার জানিয়ে দিল, 'রাজ্যসরকারের জন্য এই ব্রিজ খুলতে দেরি হয়েছে। প্রথম ৪ মাসের মধ্যে ব্রিজের নকশা বদল, তারপর তৈরি ব্রিজে ২৯ টি ভুল ছিল। সেই ভুল সংশোধন করতে অনেকটাই দেরী হয়েছে'।

 

আরও পড়ুন, 'ইশকওয়ালা ফুড', শীতে মুড বদলাতে এখনই বেরিয়ে পড়ুন, রইল কলকাতার সেরা রেস্তোরার হদিশ


রাজ্য সরকারকে দায়ী করল রেল


উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে মাঝেরহাট ব্রিজ ভেঙে পড়ে। তার পর অনেকটা সময় কেটে গিয়েছে। নতুন রূপে মাঝেরহাট সেতু চালু হলে, বেহালা, নিউআলিপুর, ঠাকুরপুকুর-সহ দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিস্তীর্ণ অংশের সঙ্গে কলকাতার যোগাযোগ আগের মতোই স্বাভাবিক হবে। তবে নয়া এই সেতুর কাজ প্রায় শেষ। রেলের সেফটি সার্টিফিকেটের জন্য অপেক্ষা চলছে। পূর্বরেলের তরফে মুখ্যমন্ত্রীর দাবি খারিজ করে দেওয়া হয়েছে। এদিকে রাজ্যের অনুমতি না মেলায় মাঝেরহাট ব্রিজের কাজ থমকে আছে বলে দাবি করা হয়েছে।

 

আরও পড়ুন, বেড়িয়ে পড়ুন বড়ন্তি, কলকাতার কাছেই সেরা ৫ ঘুরতে যাওয়ার জায়গার রইল হদিশ