Asianet News BanglaAsianet News Bangla

কয়লা পাচারকাণ্ডে ম্যারাথন জেরা অভিষেকের শ্যালিকাকে, ৭ ঘণ্টা পরে বেরোলেন ED-র অফিস থেকে

কয়লা পাচারকাণ্ডে ম্যারাথন জেরা অভিষেক ব্যানার্জির শ্যালিকা মেনকা গম্ভীরকে। প্রায় সাত ঘণ্টা পর সন্ধ্যেবেলায় তিনি এনযফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের অফিস থেকে বেরিয়ে আসেন।

ED interrogates Abhishek Banerjee's sister-in-law Menaka Gamvir for 7 hours in coal smuggling case bsm
Author
First Published Sep 12, 2022, 8:35 PM IST

কয়লা পাচারকাণ্ডে ম্যারাথন জেরা অভিষেক ব্যানার্জির শ্যালিকা মেনকা গম্ভীরকে। প্রায় সাত ঘণ্টা পর সন্ধ্যেবেলায় তিনি এনযফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের অফিস থেকে বেরিয়ে আসেন। আগেই নোটিশ পেয়েছিলেন তিনি। সোমবার দুপুরবেলা সল্টলেকের সিডিও কমপ্লেক্সে ইডির দফতরে গিয়েছিলেন তিনি। 


কয়লাপাচারকাণ্ডে রীতিমত হেনস্থা করা হয় তৃণমূল কংগ্রেসের নম্বর টু  অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের শ্যালিকা মেনকাকে। তেমনই অভিযোগ করেছেন তিনি। প্রথমত মেকনার অভিযোগ তাঁকে ইডি যে নোটিশ পাঠিয়েছিল তাতে তাতে সোমবার মধ্যরাতে ইডির অফিসে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। সেইসময় রাতের অন্ধকারেই আইনজীবেকে সঙ্গে নিয়ে সল্টলেকে ইডির অফিসে যান। কিন্তু সেখানে কেউ ছিল না। অগত্যা ফিরে আসেন। কিন্তু তাঁর আইনজীবী জানিয়েছে যে নোটিশ পাঠান হয়েছিল ইডির পক্ষ থেকে সেখানে তাঁকে ১২ সেপ্টেম্বর ১২টা এ.এম- অর্থাৎ রাতেই ডাকা হয়েছিল। যা নিয়ে রীতিমত তোলপাড় হয় রাজ্যরাজনীতি। তবে ইডি সূত্রের খবর এই 'অনিচ্ছাকৃত ভুল'এর জন্য তাঁরা নাকি মেনকার কাছে ক্ষমাও চেয়েছেন। 

অন্যদিকে অভিষেকের শ্যালিকাকে শনিবার ব্যাঙ্কক যেতে বাধা দেওয়া হয়েছিল। কলকাতা বিমানবন্দরে তাঁকে ২ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে বসিয়ে রাখা হয়। যা নিয়ে আদালত অবমাননার অভিযোগ তুলে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা ঠুঁকেছেন তিনি। এই মামলার শুনানি হবে বিচারপতি মৌসুমী ভট্টাচার্যের এজলাসে। 

শনিবার রাত ৮টা নাগাদ বিমানবন্দে পাসপোর্ট ও টিকিট জমা দেন। বোয়িং পাস নেওয়ার সময়ই তাঁকে আটকে দেয় অভিবাসন দফতর। আধিকারিকরা জানান একটি বিশেষ মামলায় তাঁর বিরুদ্ধে লুকআউট নোটিশ জারা করা হয়েছে। তাই সেই কারমেই তিনি শহর ছাড়তে পারবেন না। তারপরই তাঁকে লুক আউট নোটিশ ধরিয়ে দেওয়া হয়। এই ঘটনাট রীতিমত অস্বস্তিতে পড়ে যান মেনকা।  

কয়লাকাণ্ডে একাধিকবার কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে ডেকে পাঠিয়েছিল। ডাকা হয়েছিল তাঁর স্ত্রী রুজিরাকেও। দিল্লিতেও কয়লাপাচারকাণ্ডে তলব করা হয়েছিল দম্পতিকে। কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা একবার অভিষেকের দক্ষিণ কলকাতার বাড়ি শান্তিনিকেতনেও হানা দিয়েছিল।  কয়লাপাচারকাণ্ডে একাধিকবার জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে অভিষেককে। তদন্তকারীদের অনুমান আর্থিক তছরুপে হাত রয়েছে অভিষেকের। আর রুজিরার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে টাকা পাচার হয়েছে।  

নেত্রীর নির্দেশে চায়ের দোকানই মন্ত্রীর কার্যালয়, অন্য নজির তৃণমূল নেতা তাজমুল হোসেনের

টাটারা বিনিয়োগ করছে রাজ্যে, ১১ হাজার নিয়োগপত্র বিলি করে ঘোষণা মমতার
Pakistan flood: খাবার নেই বন্যা বিধ্বস্ত পাকিস্তানে, নিজে মুখেই দুর্দশার কথা বললেন প্রধানমন্ত্রী শরিফ

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios