এ যেন হইয়াও হইল না শেষ। বিকেলে মুখ্য়মন্ত্রীর ৫ পাতার চিঠির পর শুক্রবার সকালে 'বোমা ফাটানোর' ইঙ্গিত দিলেন রাজ্য়পাল। যার জেরে করোনার আবহে রাজ্য়-রাজ্য়পাল সংঘাত নিয়ে চলল শাসক-বিরোধী তরজা।

— Governor West Bengal Jagdeep Dhankhar (@jdhankhar1) April 23, 2020 

বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চিঠির সেভাবে পাল্টা জবাব দেননি রাজ্যপাল। টুইট করে শুধু বলেছেন, মুখ্যমন্ত্রীর চিঠি পেয়েছি। তবে সেখানে যা বলা হয়েছে তা একেবারেই ভুল এবং সাংবিধানিকভাবেও দুর্বল। আমি কাল সকাল ১১ টায় আমার যা বলার, চূড়ান্তভাবে জানাব। রাজ্যের মানুষের আসল ছবিটা দেখা উচিত।

এর আগে বিকেলে রাজ্য়পাল জগদীপ ধনখড়ের বিরুদ্ধে সংবিধান অবমাননার অভিযোগ আনেন মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়। মুখ্য়মন্ত্রীর অভিযোগ, রাজ্যপালের মতো পদে বসে মুখ্য়মন্ত্রী ও তাঁর মন্ত্রীদের অপমান করেছেন ধনখড়। যা আসলে অম্বেদকরের সংবিধান অবমাননার সমান। এ নিয়ে রাজ্য়পালকে পাঁচ পাতার চিঠি  দিয়েছেন মুখ্য়মন্ত্রী।

সাংবিধানিকভাবে দুর্বল, মমতার চিঠির পাল্টা দিলেন রাজ্য়পাল...

চিঠিতে তিনি লিখেছেন, আপনি আমায় সরাসরি আক্রমণ করছেন। আমার মন্ত্রী, অফিসারদের অপমান করছেন। আপনার বলার ভঙ্গি শব্দচয়ন অসাংবিধানিক। আগে নিজেকে বিচার করুন। যে রাজ্য়ের রাজ্য়পাল সেই সরকারের বিরুদ্ধেই আক্রমণ।

একদিনে আক্রান্ত ৫৮ জন, রাজ্য়ের রিপোর্টে করোনা সংক্রমিত বেড়ে ৩৩৪.

আমার মন্ত্রিসভা ও প্রশাসনিক কাজে হস্তক্ষেপ। ভুলে গেছেন আমি জনগণের দ্বারা নির্বাচিত মুখ্য়মন্ত্রী। মনে হয় ভুলে গেছেন আপনি মনোনীত রাজ্য়পাল। আপনি আমার ও মন্ত্রিসভার পরামর্শ অগ্রাহ্য় করতে পারেন, কিন্তু অম্বেদকরের কথা উপেক্ষা করা আপনার উচিত নয়। আপনার মন্তব্য় আমার অফিসকে অপমান করেছে। আমাকে হতবাক করেছে। সংবিধানে দেওয়া রাজ্য়পালকে ক্ষমতার কথা উল্লেখ করে এই চিঠি দিয়েছেন মুখ্য়মন্ত্রী