সল্টলেক সেক্টর ফাইভে ওয়েবেল বিল্ডিং -এর নির্মাণের কাজ চলছে। আর সেখানেই ছিল লেবার রুম। তার পাশে থাকা একটি ক্যান্টিন  থেকেই আচমকাই আগুন লাগে ওই লেবার রুমে। দমকলের তিনটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে উপস্থিত। তবুও আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসেনি।

আরও পড়ুন, কবে থেকে শুরু লোকাল ট্রেন, উত্তর নেই রেলের কাছেও

 

মানুষগুলির রাতের খাবারগুলিও কাছে আছে কিনা সন্দেহ

 আর দশটা দিনে মতোই কাজ চলছিল সল্টলেক সেক্টর ফাইভে টেকনোপলিশের কাছে ওয়েবেল বিল্ডিং-এ। দীর্ঘদিন ধরে এই কাজ চলে বলে স্বাভাবিকভাবেই এই কাজ করতে আসা অস্থায়ী কর্মীরা পাশেই ঘর বানিয়ে থাকত। রুজি-রুটির শেষ সবটুকুই সেই ঘর গুলিতেই মজুত ছিল। আধ পেটা খেয়ে থাকা এই হত দরিদ্র মানুষগুলির রাতের খাবারগুলিও কাছে আছে কিনা সন্দেহ। আর লক্ষীপুজোর ভরা উৎসবের মরশুমেই এত বড় অগ্নিকাণ্ড ঘটল।

আরও পড়ুন, নবান্ন অভিযানে পুলিশের বেদম মার খাওয়া কর্মীদের সম্মান জানাবে বিজেপি, জানালেন সৌমিত্র খাঁ

 

 

ঘরের সবকিছু পুড়ে ছাই, অনেকেই দাঁড়িয়ে নির্বাক দৃষ্টিতে

এদিকে আগুন ছড়ায়  পাশে থাকা একটি ক্যান্টিন  থেকেই বলে জানা গিয়েছে। মোট ৩ টি  দমকলের ইঞ্জিন এসেও কালঘাম ছুটে যায় আগুন নেভাতে। যুদ্ধকালীন তৎপরতায় কাজ চলে। তবে আগুন কিছু নিভলে ফিরে দেখে কর্মীরা, তাঁদের ঘরের সবকিছু পুড়ে ছাই। কি করতে হবে বুঝতে না পেরে,অনেকেই দাঁড়িয়ে নির্বাক দৃষ্টিতে।