চাপে পড়লেই খুলে যাবে দরজা। বিপদে সাথ দেবে বায়ো টয়লেট। এমনই বায়ো টয়লেটের উদ্বোধন হল কলকাতায়। মেয়র ফিরহাদ হাকিমের উদ্য়োগে শনিবার আলিপুর পেট্রোল পাম্পে এই বায়ো টয়লেট বসানো হয়। ভবিষ্যতে আরও বেশকিছু বায়ো টয়লেট বসাবে কলকাতা পুরসভা, এমনই জানিয়েছেন মেয়র। 

ব্রাজিল থেকে বেহালার পুকুরে, কোন পথে এল অ্যালিগেটর ফিস

কলকাতাকে স্বচ্ছ রাখতে এবার নিজেদের উদ্য়োগেই বায়ো টয়লেট তৈরি শুরু করল কলকাতা পুরসভা। সম্প্রতি কলকাতা পুরসভার ওয়ার্কশপে তৈরি  শুরু হয়েছে বায়ো টয়লেট ইউনিটের। শহরের বিভিন্ন জায়গায় এই টয়লেট বসানোর  পরিকল্পনা নিয়েছে পুরসভা। 

'চুমু খেতে মানা', করোনা সচেতনতায় নির্দেশিকা কলকাতা মেট্রোর

এদিন কলকাতা পুরসভার নিজস্ব ওয়ার্কশপে তৈরি বায়ো টয়লেটের উদ্বোধন করলেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম। শনিবার আলিপুর পেট্রোল পাম্পে এই বায়ো টয়লেট বসানো হয়। এদিন মেয়র বলেন, শহরের যেসব জায়গায় সুলভ শৌচালয় নেই , পথ চলতি মানুষের স্বাচ্ছন্দের কথা মাথায় রেখেই এই ব্য়বস্থা করা হয়েছে। আগামীতে গোটা শহর জুড়েই প্রয়োজন অনুযায়ী এই ধরনের বায়ো-টোয়েলেট বসানো হবে।

কার্জন গেটে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজের চিকিৎসকদের নাচ, মুহূর্তে ভাইরাল ভিডিও

এ প্রসঙ্গে মেয়র ফিরহাদ হাকিম বলেন, এই ধরনের বায়ো- টয়লেট ব্যবহারের ফলে শহর কলকাতাকে আরও দূষণমুক্ত ও পরিচ্ছন্ন রাখা যাবে। এই টয়লেট বাইরে থেকে তৈরি  করতে প্রায় ১০ হাজার টাকার মতো খরচ হত। এতদিন বাইরে থেকে বায়ো- টয়লেট  কিনে তা শহরে বসানো হত। কিন্তু কলকাতা পুরসভার ওয়ার্কশপে তৈরি হওয়ায় এর ব্যয়ভার অনেক কমে গিয়েছে। যার ফলে আর্থিক সাশ্রয় হবে।