রক্তাল্পতা তো ছিলই। একই সঙ্গে নিউমোনিয়াতেও আক্রান্ত প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। সংক্রমণ ছড়িয়েছে তাঁর ফুসফুসেও। ফলে বাড়ি ফিরতে উদগ্রীব হলেও আপাতত বেশ কিছুদিন হাসপাতালেই থাকতে হবে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে। 

এ দিন বিকেলে উডল্যান্ডস হাসপাতালের তরফে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর দু'টি ফুসফুসেই সংক্রমণ রয়েছে। বিশেষত তাঁর ডান দিকের ফুসফুসে সংক্রমণ বেশি। সংক্রমণ কমাতে তাঁকে অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া হচ্ছে। যদিও তাঁর শারীরিক অবস্থা আগের থেকে অনেকটাই স্থিতিশীল বলে আশ্বস্ত করেছেন চিকিৎসকরা। 

আরও পড়ুন- হাসপাতালে পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য, দেখা করতে গেলেন মমতা

প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর রক্তে কার্বন ডাই অক্সাইডের মাত্রাও অনেকটাই বেড়ে গিয়েছিল। সেই কারণেই খাবারের সময়টুকু বাদ দিয়ে বুদ্ধদেবকে বাই প্যাপ ভেন্টিলেশন দেওয়া হচ্ছে। যদিও, অনেক সময়ই তা নিতে চাইছেন না প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। এ দিনও চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি। কবে বাড়ি ফিরতে পারবেন, সেই প্রশ্নও করেছেন তিনি। চিকিৎসকরা তাঁকে জানিয়েছেন, পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষ হলে এবং শারীরিক অবস্থার একটু উন্নতি হলেই ছাড়া হবে তাঁকে। তবে তার জন্য যে বেশ কিছুদিন সময় লাগবে, তা বুঝিয়ে দিয়েছেন চিকিৎসকরা। 

যেহেতু প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী রক্তাল্পতায় ভুগছেন, তাই তাঁকে দু' ইউনিট রক্ত দেওয়া হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় আরও এক ইউনিট রক্ত দেওয়া হবে তাঁকে। 

তীব্র শ্বাসকষ্ট নিয়ে শুক্রবার রাতে উডল্যান্ডস হাসপাতালে ভর্তি করা হয় প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে। তাঁকে দেখতে হাসপাতালে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ দিন হাসপাতালে গিয়েছিলেন বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়ও। জানা গিয়েছে, তাঁকে দেখতে হাসপাতালে যাতে খুব বেশি ভিড় না হয়, সেই অনুরোধ করেছেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। অন্যান্য রোগীদের অসুবিধা হতে পারে ভেবেই এই অনুরোধ করেছেন তিনি।