কিছুদিন আগেই কলকাতা মেট্রোর তরফ থেকে জানানো হয়েছে চলতি বছরে পূজোর আগেই শুরু হতে চলেছে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো পরিষেবা। যা আপাতত সল্টলেক স্টেডিয়াম থেকে শুরু করে সেক্টার-৫ অবধি ৬ টি স্টেশনের ওপর দিয়ে যাতায়াত করবে বলে জানা গিয়েছে। আর তার পরেই সকলকে চমকে দিল মেট্রোর এই দুর্দান্ত খবর। ২০৩৫ সালের মধ্যে প্রায় ১০ লক্ষ যাত্রী নিয়ে ছুটবে কলকাতা ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো, যা তাক লাগিয়ে দেওয়ার মতো, এমনটাই জানালেন মেট্রো রেল আধিকারিক।  
৫২০ কিলোমিটার দ্বৈত টানেলের মধ্যে দিয়ে ছুটবে এই মেট্রো, যার মধ্যে একটি যাবে ইস্ট পথে আর অপরটি যাবে ওয়েস্টে। এই মেট্রো পথে থাকছে আরও একটি চমক যেখানে গঙ্গার ৩০ মিটার নীচ দিয়ে ছুটবে এই মেট্রো। যা যথেষ্ট রোমহর্ষকও বলা যেতে পারে। যদি কোনও যাত্রী হাওড়া থেকে মহাকরণ যেতে চান তবে তাকে এই পথ পার করেই যেতে হবে। তবে হয়তো এই পথ পার করার সময় বুঝতেও পারবেননা যাত্রীরা কারণ মেট্রোটি চলবে ঘণ্টায় ৮০ কিলমিটার বেগে। 
শহরে এই প্রথম গঙ্গার নীচ দিয়ে মেট্রো চলবে। তবে এই কাজ সম্পূর্ণভাবে শেষ হবে ২০২১ সালে। এই পরিষেবা চালু হলে বহু মানুষ উপকৃত হবেন বলেই মনে করা হচ্ছে। এই পরিষেবার ফলে অফিস টাইমে যানজটও কিছুটা এড়ানো যাবে বলে আশা করছেন সকলে। 
তবে বর্তমানে মেট্রোর পরিস্থিতি কারোরই অজানা নয়। সম্প্রতি মেট্রোতে পরপর ঘটে গেছে দুটি বড় দুর্ঘটনা। দ্বিতীয় দুর্ঘটনায় তেমন বড় কোনও ক্ষয়-ক্ষতি না হলেও প্রথম দুর্ঘটনাটিতে প্রাণ যায় সজল কাঞ্জিলাল নামের এক ব্যক্তির যার আতঙ্ক প্রায় কাটছিলোই না যাত্রীদের মন থেকে। আর এবার সেই সব আতঙ্ককে ভুলিয়ে নতুন পরিষেবা পাওয়ার আনন্দে-মাতার দিন আসছে। তবে সে সময়টা এখনও অনেকটাই বাঁকি তবুও কলকাতা মেট্রোর এই নতুন পরিষেবা পাওয়ার আশায় মহানগরবাসী এখন থেকেই চাতক পাখির মত অপেক্ষায় রয়েছে।