আর কিছু সময়ের অপেক্ষা, মমতার চিঠির পাল্টা দেবেন রাজ্য়পাল। সকাল ১১টায় এ নিয়ে বিস্তারিত বলবেন জগদীপ ধনখড়। মুখ্য়মন্ত্রীর পাঁচ পাতার চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে কী বলতে চলেছেন তিনি? 

রাজ্য়পালকে ৫ পাতার চিঠি মুখ্য়মন্ত্রীর,নিজেকে আগে বিচার করুন.

বৃহস্পতিবার রাজ্য়পালকে সাংবিধানিক অধিকারের কথা স্মরণ করিয়ে পাঁচ পাতার চিঠি দেন মুখ্য়মন্ত্রী। মুখ্য়মন্ত্রীর  কড়া চিঠির কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া দেয় রাজভবন। মুখ্যমন্ত্রীকে রাতেই পাল্টা একটি চিঠি পাঠান রাজ্যপাল। যেখানে তিনি বলেন, মুখ্য়মন্ত্রী নিজেই সাংবিধানিক শর্ত মেনে রাজ্য চালাচ্ছেন না। কোনও সাংবিধানিক পদাধিকারীকে নিজেই আইন হয়ে ওঠার অধিকার সংবিধান দেয়নি। জমিদারির মতো রাজ্য চালানো যায় না। তা সাংবিধানিক শর্ত মেনেই চালাতে হয়।

সাংবিধানিকভাবে দুর্বল, মমতার চিঠির পাল্টা দিলেন রাজ্য়পাল...

তবে চিঠি পাঠানোর পরও টুইট করে রাজ্য়পাল বলেছেন, মুখ্যমন্ত্রীর চিঠি পেয়েছি। তবে সেখানে যা বলা হয়েছে তা একেবারেই ভুল এবং সাংবিধানিকভাবেও দুর্বল। আমি কাল সকাল ১১ টায় আমার যা বলার, চূড়ান্তভাবে জানাব। রাজ্যের মানুষের আসল ছবিটা দেখা উচিত।

Initial response @MamataOfficial sent. A final one tomorrow at 11 am. Modalities of interaction with media keeping in view covid 19 are being worked out.

— Governor West Bengal Jagdeep Dhankhar (@jdhankhar1) April 23, 2020 

এর আগে বিকেলে রাজ্য়পাল জগদীপ ধনখড়ের বিরুদ্ধে সংবিধান অবমাননার অভিযোগ আনেন মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়। মুখ্য়মন্ত্রীর অভিযোগ, রাজ্যপালের মতো পদে বসে মুখ্য়মন্ত্রী ও তাঁর মন্ত্রীদের অপমান করেছেন ধনখড়। যা আসলে অম্বেদকরের সংবিধান অবমাননার সমান। এ নিয়ে রাজ্য়পালকে পাঁচ পাতার চিঠি  দিয়েছেন মুখ্য়মন্ত্রী।

চিঠিতে তিনি লিখেছেন, আপনি আমায় সরাসরি আক্রমণ করছেন। আমার মন্ত্রী, অফিসারদের অপমান করছেন। আপনার বলার ভঙ্গি শব্দচয়ন অসাংবিধানিক। আগে নিজেকে বিচার করুন। যে রাজ্য়ের রাজ্য়পাল সেই সরকারের বিরুদ্ধেই আক্রমণ।

আমার মন্ত্রিসভা ও প্রশাসনিক কাজে হস্তক্ষেপ। ভুলে গেছেন আমি জনগণের দ্বারা নির্বাচিত মুখ্য়মন্ত্রী। মনে হয় ভুলে গেছেন আপনি মনোনীত রাজ্য়পাল। আপনি আমার ও মন্ত্রিসভার পরামর্শ অগ্রাহ্য় করতে পারেন, কিন্তু অম্বেদকরের কথা উপেক্ষা করা আপনার উচিত নয়। আপনার মন্তব্য় আমার অফিসকে অপমান করেছে। আমাকে হতবাক করেছে। সংবিধানে দেওয়া রাজ্য়পালকে ক্ষমতার কথা উল্লেখ করে এই চিঠি দিয়েছেন মুখ্য়মন্ত্রী