ভোটের আগে রাজ্যে বাড়ছে রাজনৈতিক হিংসা। সপ্তাহের গোড়াতেই কোচবিহারে মিলেছিল এক বিজেপি কর্মীর মৃতদেহ। তার পরিবার দায়ী করেছিল তৃণমূলকে। এবার ফের একবার 'রাজনৈতিক হিংসা' নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন তৃণমূল কংগ্রেস সরকারকে নিশানা করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর। পাল্টা জবাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-ও।

আরও পড়ুন - কেন মনমোহনকেই প্রধানমন্ত্রী করেছিলেন সনিয়া, ফের ঝড় তুলল ওবামা-র স্মৃতিকথা

আরও পড়ুন - লাদাখ মানচিত্র বিতর্ক, ভারতের কাছে লিখিতভাবে ক্ষমা চাইতে বাধ্য হল টুইটার

আরও পড়ুন - কতজন নার্গিস সুনীল দত্তকে বিয়ে করেছেন, আর কত সীতা হবে রুবিয়া - বিস্ফোরক বিজেপি নেতা

এদিন রাজ্যপাল সরাসরি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-কে উদ্দেশ্য করে বাংলায় রাজনৈতিক হিংসা ও হত্যাকাণ্ড বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে। সাফ জানিয়েছেন তিনি এটা সহ্য করবেন না। রাজনীতির সঙ্গে তাঁর কোনও যোগ নেই দাবি করে রাজ্যপাল বলেন, রাজ্যের নাগরিকদের তিনি হতাশ করতে পারবেন না। আম আদমী সঠিকভাবে যাতে ভোট দিতে পারেন, সেটা নিশ্চিত করতে হবে। নিজেকে ভারতীয় সংবিধানের এজেন্ট, সংবিধানের সিপাই বলেও বর্ণনা করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর।

রাজ্যপালের এই আক্রমণের জবাব দিতে দেরি করেননি মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২০২১ সালের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের কথা উল্লেখ করে তিনি অভিযোগ করেন, নির্বাচনের আগে রাজ্যের শান্তি বিঘ্নিত করার জন্য বাইরে থেকে বাংলায় গুন্ডা আনা হচ্ছে। রাজ্যপালকে তাদের ফাঁদে না পড়ার পরামর্শ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই সঙ্গে তিনি জানান, উদ্বেগের কোনও প্রয়োজন নেই। রাজ্যপালকে কেউ যাতে আক্রমণ না করে তা নিশ্চিত করতে তিনি পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন বলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।