শহরে 'মরণঝাঁপ' উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর। সোমবার সকালে আনন্দপুরের একটি আবাসনের ২৪ তলা থেকে ওই  উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ঝাপ দেয় বলে দাবি করা হয়েছে। তবে সত্যিই ওই কিশোর আত্মঘাতী হয়েছে নাকি অন্য কোনও কারণ, তা জানতে ইতিমধ্য়েই ঘটনাস্থলে পৌছেছে কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ।  

আরও পড়ুন, মা-বাবার দেহ আগলে রাখল মেয়ে, ১ সপ্তাহ পরে উদ্ধার করল বরানগর পুলিশ

 

 

২৪ তলার শৌচালয়ের জানালা থেকে ঝাঁপ

সূত্রের খবর, মৃত কিশোরের বাবা পেশায় ব্য়বসায়ী। জানা গিয়েছে, ওই কিশোর ডন বসকো স্কুলের ছাত্র। অন্য়ান্যদিনের মতোই সে ঘুম থেকে উঠে পড়তে বসে। বাড়িতে তখন ছিল বাবা-দাদা। আচমকাই জোরে কিছু পড়ে যাওয়ার শব্দ পান তাঁরা। আওয়াজ পেতেই ফ্ল্য়াটের বাসিন্দারা বাইরে বেরিয়ে আসেন। তাঁরা দেখেন, রক্তাক্ত অবস্থায় ওই কিশের ৫ নম্বর টাওয়ারের পাশে পড়ে রয়েছে। দাবি, ২৪ তলার শৌচালয়ের জানালা থেকে ঝাঁপ দিয়েছে ওই কিশোর। এরপর সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। হাসপাতালে নিয়ে গেলে ওই কিশোরকে মৃত বলে ঘোষণা করে।

আরও পড়ুন, শীতে গেলেই হয় 'গড়চুমুক', রইল কলকাতার কাছে সেরা ৫ ঘুরতে যাওয়ার ঠিকানা

 

উচ্চ মাধ্যমিক দেওয়ার কথা ছিল তাঁর

খবর পেয়ে ইতিমধ্য়েই ঘটনাস্থলে পৌছেছে কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ।  এইমুহূর্তে ওই ছাত্রের দেহ ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। জানা গিয়েছে, ওই কিশোরের  উচ্চ মাধ্যমিক দেওয়ার কথা ছিল। তবে পড়াশোনা ঠিকভাবে না হওয়ায় মানসিক অবসাদে ছিল সে। সেই কারণেই এই সিদ্ধান্ত কিনা জানার চেষ্টা করছেন তদন্তকারীরা।