মুখ্য়মন্ত্রীকে চিঠি দেওয়ার পর রাজ্য়ের করোনা পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়েছে। ফের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কড়া ভাষায় চিঠি লিখলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। নতুন চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিটি অভিযোগের জবাব দিয়েছেন রাজ্যপাল। পাশাপাশি মুখ্য়মন্ত্রীকে তিনি মনে করিয়েছেন,রাজ্য়ে ক্রমশই বেড়ে চলেছে করোনার সংক্রমণ। এমনকী এরকম একটা পরিস্থিতিতে রেশন দুর্নীতির মুখেমুখি হচ্ছে রাজ্য়বাসীকে।  

বাংলা ওপরে সবুজ-ভিতরে লাল, করোনা নিয়ে এবার মুখ্য়মন্ত্রীকে চিঠি দিলীপ ঘোষের.

জানা গিয়েছে, মমতাকে লেখা চিঠিতে গীতার শ্লোক উল্লেখ করেছেন জগদীপ ধনখড়। এমনকী ১৬ টি বিষয় প্রসঙ্গে মুখ্য়মন্ত্রীকে অবগত করেছেন। চিঠিতে রাজ্যপাল লিখেছেন, আপনাকে আমি এর আগেও চিঠি দিয়েছিলাম। তারপরে রাজ্যে করোনা পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়ে উঠেছে। স্বাস্থ্যব্যবস্থার হালও আগের চেয়ে খারাপ হয়েছে। এই কঠিন সময়ে তাঁরা যে স্বাস্থ্য়কর্মীরা মানুষকে পরিষেবা দিচ্ছেন। তাঁদের নিরাপত্তার জন্য যথেষ্ট ব্যবস্থা করা উচিত।

রাজ্য়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১২৫৯,মৃত ৬১.

এই বলেই থেমে থাকেননি রাজ্য়পাল। তিনি আরও বলেন,রাজ্য সরকার করোনায় মৃতদের দেহ সৎকারের ক্ষেত্রেও অপদার্থতার পরিচয় দিয়েছেন। অতীতে রাজনৈতিক দলগুলি শকুনের মতো মৃতদেহের অপেক্ষায় বসে আছে বলে মন্তব্য় করেচিলেন মুখ্য়মন্ত্রী এদিন তা নিয়েও মমতাকে খোঁচা দিতে ছাড়েননি ধনখড়। তিনি বলেন, এই বিপদের সময় সব দল সরকারের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। কিন্তু মমতা বিরোধীদের কাজ করতে দিচ্ছেন না। 

রাজ্যে করোনায় মৃত্যুর হারে দেশের শীর্ষে পশ্চিমবঙ্গ, বলছে কেন্দ্রের টিম.

রাজ্য়ের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি বলছে মুখ্য়মন্ত্রী -রাজ্য়পাল  সংঘাত থামছে না। কদিন আগেই রেশন নিয়ে মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়ের সরকারকে উদ্দেশ্য় কর টুইট করেছেন রাজ্য়পাল জগদীপ ধনখড়। টুইটে রাজ্য়পাল বলেছেন,প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ অন্ন যোজনা প্রকল্পে এ রাজ্যেও সবাই নিখরচায় রেশন পাবেন, আমি নিশ্চিত পশ্চিমবঙ্গ সরকার এব্যাপারে যথোপযুক্ত পদক্ষেপ করবে। ইতিমধ্য়েই রাজ্য়পাবের এই টুইট ঘিরে শুরু হয়েছে বিতর্ক । অনেকেই বলতে শুরু করেছেন, রাজ্য 'রেশন দুর্নীতি পর্ব' চলাকালীন রাজ্য় পালরে এই টুইট আসলে তৃণমূলের সরকারকে কাটা ঘাঁয়ে নুনের ছেটা।

রবিবার ফের টুইটে ভিডিয়ো বার্তা পড়ে রাজ্যপাল বলেন, প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ অন্ন যোজনা প্রকল্পে এরাজ্যেও সবাই নিখরচায় রেশন পাবেন, আমি নিশ্চিত পশ্চিমবঙ্গ সরকার এব্যাপারে যথোপযুক্ত পদক্ষেপ করবে। রাজ্য়ের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি  বলছে, লকডাউনে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে রেশনে খাদ্য-সামগ্রী বণ্টনে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে। একাধিক এলাকায় রেশন দুর্নীতিতে অভিযোগ ওঠে খোদ স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে। যার জেরে খাদ্য় সচিব এমনকী বহু রেশন ডিলারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হয়।