খাস কলকাতায় লাফিয়ে বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। বেগতিক দেখে এবার টেস্ট বাড়াতে  নিজস্ব করোনা পরীক্ষা কেন্দ্র করতে চায় কলকাতা পুরসভা। সূত্রের খবর, পুরসভার ৫৮ ও ১১১ নম্বর ওয়ার্ডে দুটি পরীক্ষা কেন্দ্র করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্য়েই আইসিএমআর এবং রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের কাছে এই বিষয়ে  অনুমতি চাওয়া হয়েছে। সব সময়মতো হলে আগামী তিন মাসের মধ্যে পরীক্ষাকেন্দ্র প্রস্তুত করতে চায় কলকাতা পুরসভা।

মহানগরে করোনা রোগী চিহ্নিত করতে দ্রুত টেস্টের পথই বেছে নিয়েছে কলকাতা পুরসভা। ইতিমধ্য়েই কলকাতা পুরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডে শুরু হয়েছে সোয়াব টেস্ট। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আইসিএমআর ও 'হু'- এর পরামর্শে অ্যান্টি বডি টেস্টের জন্য রক্তের নমুনা আইসিএমআর চেন্নাই পাঠাতে হয়েছে। আবার কখনও লালারসের নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে এসএসকেএম ও আরজিকরে। 

এবার অন্য়ের ওপর নির্ভর না থেকে নিজের পরিকাঠামোতেই অ্যান্টিবডি ও সোয়াব টেস্ট করতে চায় কলকাতা পুরসভা। সম্প্রতি এই বিষয় নিয়ে মুখ খুলেছেন, কলকাতা পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর সদস্য অতীন ঘোষ বলেন। তিনি বলেন, আগামী দিনে সবুজ সংকেত পেলে ৩ মাসের মধ্যেই ল্যাব তৈরির কাজ শেষ করা হবে। আইসিএমআর অনুমতি পেলে বিশেষ  পরিকাঠামো গড়তে খুব একটা সময় লাগবে না।

জানা গিয়েছে, কলকাতা পুরসভার ৫৮ নম্বর ওয়ার্ডের চম্পা মণি মেটারনিটি সেন্টার রয়েছে। সেখানেই পুরো পরিকাঠামো তৈরির উদ্য়োগ  নেওয়া হচ্ছে।  চম্পা মণি মেটারনিটি সেন্টারের পরিকাঠামোকে কাজে লাগিয়ে ১০০ শয্যার হাসপাতাল এবং সঙ্গে নোবেল করোনার অ্যান্টিবডি ও লালারস পরীক্ষা কেন্দ্র করার আশ্বাস দিয়েছে পুরসভা।

৫৮ নম্বর ওয়ার্ডের চম্পা মণি মেটারনিটি সেন্টার বাদে ১১১ নম্বর ওয়ার্ডের ওরাল মেইন রোডে টিবি হাসপাতালেও এই একই পরিকাঠামো গড়ার কথা হচ্ছে।  বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়েছেন এলাকার বাসিন্দারা।