ভোররাতের দিকে সামান্য ঠান্ডা লাগলেও  শীত পুরোপুরি আসার কোনও লক্ষণই নেই। তবে এই ঘটনাকে অস্বাভাবিক মনে করছেন না আবহাওয়া বিশেষজ্ঞরা। পরপর দুটি পশ্চিমী ঝঞ্ঝার মাঝের সময় বেড়ে গেলে, তখনই রাজ্য সহ পূর্ব ভারতে ঢুকে পড়বে উত্তরের শীতল হাওয়া।

আরও পড়ুন, শনিবার রাত থেকে হাওড়ায় বন্ধ ট্রেন চলাচল, যাত্রীদের ভোগান্তির আশঙ্কা

 

 

আরও পড়ুন, শিয়ালদহ-বনগাঁ লোকালে বোমাতঙ্ক, মহিলা কামরায় ব্যাগ ঘিরে হইচই

আবহাওয়া দফতরের খবর অনুযায়ী, শুক্রবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকতে পারে ৩০.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি। শহরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রার পারদ ছুঁতে পারে ১৯.৫  ডিগ্রি সেলসিয়াস। শহরের বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বাধিক ৯৯  শতাংশ।  আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ন্যূনতম  ৫৩ শতাংশ।  বেলা বাড়ার সঙ্গে তাপমাত্রা খানিকটা বেড়ে ২৫  ডিগ্রি সেলসিয়াস। আজ শহর কলকাতার আকাশ সারাদিন পরিষ্কার থাকবে। মেঘের দেখা মিলবেনা বললেই চলে। 

আবহাওয়াবিদদের অনুমান, আগামী তিন-চারদিনেও তাপমাত্রার তেমন কোনও পরিবর্তন হবে না। তবে ডিসেম্বরের ৩ অথবা ৪ তারিখ থেকে রাতের তাপমাত্রা কমার একটা সম্ভাবনা রয়েছে।