Asianet News BanglaAsianet News Bangla

কলুটোলাস্ট্রীট অগ্নিকাণ্ডে আজ মালিকপক্ষকে ঘিরে বিক্ষোভ, তোলেনি ফোন-চাবি না দেওয়ারও অভিযোগ


অসংখ্যবার ফোন করলেও সাড়া দেয়নি গোডাউনের মালিকপক্ষ। কলুটোলাস্ট্রীটের আগুন নিভলেও মালিকপক্ষকে ঘিরে মঙ্গলবার বিক্ষোভ দেখাল স্থানীয়রা। 

Locals have protested over multiple allegations against the owners for the Kolutola Street  fire incident RTB
Author
Kolkata, First Published Oct 5, 2021, 11:18 AM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp


কলুটোলাস্ট্রীটের (Kolutola Street) আগুন নিভলেও মালিকপক্ষকে ঘিরে মঙ্গলবার বিক্ষোভ (Agitation) দেখাল স্থানীয়রা। কারণ আগুন লাগার পর কলুটোলাস্ট্রীট জুড়ে যখন হাহাকার, তখন অসংখ্যবার ফোন করলেও সাড়া দেয়নি গোডাউনের মালিকপক্ষ ( Owners)। আর এদিন সকালে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে আসেন গুদাম মালিকের ছেলে। আর তখনি তাঁকে ঘিরে ক্ষোভ উগরে দেন স্থানীয় বাসিন্দারা (Locals)।
আরও পড়ুন, সাত সকালে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড শহরে, ঘটনাস্থলে দমকলের ৮টি ইঞ্জিন

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, সোমবার আঘুন লাগার পরে অংখ্যবার ফোন করা হয়েছিল গুদামের মালিকপক্ষকে। তাহলে শেষ মুহূর্তে গুদামের চাবি পেলে আগুন নেভাতে সুবিধা হতো। অভিযোগ, মালিকপক্ষ একবারও ফোন তোলেননি। চাবিও পাঠানোর ব্যবস্থা করেননি। প্রসঙ্গত, সোমবার সকালে শহরের ব্যস্ততম এলাকা কলুটোলা স্ট্রিটে বাগরি মার্কেটের কাছে একটি বহুতলে ভয়াবহ আগুন লাগে। সকাল ১০টা ৫০ মিনিট নাগাদ আগুন লেগেছে বলে জানা গিয়েছে। ঘটনাস্থলে পৌছয় দমকলের ৮টি ইঞ্জিন। তবে ঘিঞ্জি এলাকা হওয়ায় আগুন নেভাতে গিয়ে রীতিমতো অসুবিদার মুখে পড়ে যান দলকল কর্মীরা। মুহূর্তেই ঘন কালো ধোঁয়ায় ঢেকে যায় গোটা এলাকা। ওই বহুতলের ভিতরে থাকা দাহ্য পদার্থের থেকেই আগুন ক্রমশ বড় আকার ধারণ করে বলে দাবি দমকল কর্তৃপক্ষের। বহুতলের ভিতরে একাধিক গোডাউন, দোকান ও কারখানা রয়েছে এবং ওই বহুতলের পিছনেই অসংখ্য পরিবার বসবাস করেন। তাই আগুনের খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ। ব্যারিকেড দিয়ে দেওয়া হয় এলাকায়। যেহেতু ওই এলাকা ঘনজনবসতি পূর্ণ, তাই অগ্নিকাণ্ড আরও ভয়াবহ হতে পারত। এদিকে আগুন লাগার পরেও এখনও ওই বাড়িতে চারটি পরিবার বসবাস করছে। আগুন লাগার পরে তাঁদের সাহায্যের জন্য কেউ এগিয়ে আসেনি বলে অভিযোগ।

আরও পড়ুন, Flood: 'মানুষের যন্ত্রনার কোনও দাম নেই, ভোটটাই সব', ঘাটালে বন্যা পরিদর্শনে এসে বিস্ফোরক দেব

অপরদিকে এদিন সকালে ঘটনাস্থলে যেতেই স্থানীয়দের বিক্ষোভের মুখে পড়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন। ক্ষতিপূরণের দাবি তোলেন, বাসস্থান বানানোর দাবি তোলেন আবাসিকরা। তাদের সবকিছু লিখিত দিতে হবে বলেও জানান তারাঁ। পুলিশের সামনেই চলতে থাকে বিক্ষোভ। এরপর শেষ অবধি পুলিশ এসে তাঁদেরকে বের করে নিয়ে যায়। ঘটনাস্থল ছেড়ে বেরিয়ে আসেন মালিকপক্ষ।

আরও পড়ুন, ভাইরাসের ভয় নেই তেমন এখানে, ঘুরে আসুন ভুটানে  

আরও দেখুন, মাছ ধরতে ভালবাসেন, বেরিয়ে পড়ুন কলকাতার কাছেই এই ঠিকানায়  

আরও দেখুন, বৃষ্টিতে বিরিয়ানি থেকে তন্দুরি, রইল কলকাতার সেরা খাবারের ঠিকানার হদিশ  

আরও দেখুন, কলকাতার কাছেই সেরা ৫ ঘুরতে যাওয়ার জায়গা, থাকল ছবি সহ ঠিকানা  

 

 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios