বাংলার দুর্গা পুজোর দখল নিতে মরিয়া বিজেপি। এই অবস্থায় পুজো কমিটিগুলির মন পেতে আরও দরাজ হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রীর জানিয়ে দিলেন, এবার থেকে পুজো কমিটিগুলিকে পঁচিশ হাজার টাকা করে অনুদান দেবে রাজ্য সরকার। গতবছর এই অনুদানের পরিমাণ ছিল দশ হাজার টাকা। মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণার পরে পুজোর অনুদান বাবদ রাজ্যের খরচ প্রায় দেড় গুন বেড়ে গিয়ে হল সত্তর কোটি টাকা মতো। 

গত বছর মহিলা পরিচালিত পুজো কমিটিগুলি পঁচিশ হাজার টাকা করে অনুদান পেয়েছিল। এবার সেই অনুদান বাড়িয়ে তিরিশ হাজার কোটি টাকা করার কথা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যে সবমিলিয়ে প্রায় আঠাশ হাজার পুজো কমিটি রয়েছে। তারা ন্যূনতম পঁচিশ হাজার টাকা করে পাচ্ছেই। 

শুক্রবার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে পুজো কমিটিগুলির সঙ্গে পুলিশ- প্রশাসনের বৈঠকে উপস্থিত সছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানেই এই ঘোষণাগুলি করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, পুজোর বিদ্যুতের খরচেও রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে পঁচিশ শতাংশ ছাড় দেওয়া হবে পুজো উদ্যোক্তাদের। তবে এ দিন পুজোর ভিআইপি পাস তুলে দেওয়ার পক্ষে সওয়াল করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি চান, সবাই লাইন দিয়ে ঠাকুর দেখুন। 

এর আগে পুজো কমিটিগুলিকে আয়কর নোটিশ পাঠানো নিয়েও সরব হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ধর্নাতেও বসেছে তৃণমূলের শাখা সংগঠন বঙ্গ জননী। এবার পুজো কমিটিগুলির অনুদান একধাক্কা অনেকটা বাড়িয়ে দিয়ে তাদের আরও কাছে টানতে চাইলেন মুখ্যমন্ত্রী। যদিও রাজ্যের কোষাগারের উপরে এই বাড়তি চাপ কীভাবে সামাল দেওয়া হবে, সে বিষয়ে কিছু বলেননি তিনি।