অতীতের পথেই এবারও রেকর্ড পরিমাণ বই বিকোল মুখ্য়মন্ত্রী মমতা  বন্দ্য়োপাধ্যায়ের। আগেও কলকাতা বইমেলায় তাঁর লেখা অধিকাংশ বইয়ের গায়ে বেস্ট সেলারের তকমা লেগেছে। এবারেও তার ব্যতিক্রম হল না। 

জকি হল জেলের বন্দিরাই, যাত্রা শুরু 'রেডিয়ো দমদম' এর

তথ্য বলছে, এবারে কলকাতা আন্তর্জাতিক বইমেলায় মুখ্যমন্ত্রীর ১০১টি বই বিক্রি হচ্ছে। গতবছর যে সংখ্যাটা ছিল ৮৮। এবার অবশ্য বইমেলায় মমতার সবথেক বিক্রিত বইয়ের নাম নাগরিকত্ব আতঙ্ক।  জাগো বাংলার স্টল থেকে বিক্রি হয়েছে এই বই। জানা গেছে, মাত্র ৬দিনের বইয়ের সব কপি বিক্রি হয়ে গেছে। সব মিলিয়ে বইটির এক হাজারটি প্রতিলিপি ছাপা হয়েছিল। গত ৪ ফেব্রুয়ারি এই বইটি প্রকাশ করে দে-জ পাবলিকেশন। 

মোদী সরকারকে কি অনাগরিকরা ভোট দিয়ে এনেছে, প্রশ্ন অপর্ণার

নাগরিকত্ব আইনে সিলমোহর পড়তেই রাস্তায় নেমেছিলেন মমতা। লাগাতার এই আইনের বিরুদ্ধে মিছিল করেছেন তিনি। এবারের বইমেলায় তাই তার নাগরিকত্ব বিরোধী বই নিয়ে আলাদা কৌতূহল ছিল ভক্তদের মধ্য়ে।  সেই মতো মাত্র ৬দিনে বিক্রি হয়ে গিয়েছে ১ হাজারটি -নাগরিকত্ব আতঙ্ক বই। গতবছর মমতার ৮৮টি বই বিক্রি হচ্ছিল বইমেলায়। এবছর তার সঙ্গে ৬টি বাংলা, ৬টি ইংরেজি ও একটি উর্দু বইও প্রকাশ পেয়েছে। ইতিমধ্য়েইে শত ব্যস্ততাতেও সব মিলিয়ে একশাটিরও বেশি বই লিখে ফেলেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

বেলিডান্সের উদ্দামতায় পুরুষদের হার্টথ্রব, খোদ ঋতুপর্ণাও তাঁর ভক্ত

তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো প্রাক্তন মুখ্য়মন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য়ের বইও অবার বইমেলায় দেদার বিকিয়েছে। শত অসুস্থতার মাঝেও এই বইটি রচনা করতে পেরেছেন বুদ্ধদেববাবু। তাঁর  'স্বর্গের নিচে মহাবিশৃঙ্খলা'  নিয়ে গুণমুগ্ধদের মধ্য়ে অনেক উৎসাহ ছিল।  এসএফআইয়ের স্টলে এই বইটি পাওয়া যাচ্ছে। ভগ্ন স্বাস্থ্যের জন্য রাজনৈতিক জীবনে নিজেকে আড়াল করে রাখলেও ডিকটেশন দিয়ে এই বইটি লিখেছেন তিনি।