মদ্যপ ভাইপোর হাতে খুন হলেন কাকিমা। ২ নম্বর রবীন্দ্রনগরে মদ্যপ ভাইপো শুভাশিসের হাতে খুন হলেন কাকিমা।  এদিকে শুভাশিস হল কলকাতা পুলিশের কর্মী। খোদ তার উপরই দীর্ঘদিন ধরে বাড়ির  সবার উপর অত্যাচার করার অভিযোগ, বছর পয়তাল্লিশের শুভাশিস দত্তের বিরুদ্ধে।

আরও পড়ুন, আজও ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা রাজ্যে, সপ্তাহ জুড়ে একই থাকবে পরিস্থিতি


সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার নিজেই ঘরে মদ্য পান করছিল শুভাশিস। তখন পাশের ঘরে বছর বাহাত্তের কাকিমা নমিতা দত্ত  পুজো দিচ্ছিলেন। সেই সময় অভিযোগ পরিবারের, শুভাশিস হাতে হাতুড়ি নিয়ে ঠাকুর ঘরে ঢুকে কাকিমার উপর চড়াও হয়। একদিক হাতুড়ির বাড়ি মারতে থাকে কাকিমার মাথার উপর। রক্তাক্ত হয়ে নমিতাদেবী ঘরে লুটিয়ে পড়েন। তারপর অভিযুক্ত নিজের ঘরে ঢুকে যায়। পরিবারের লোকেরা ছুটে আসে পাড়ার লোকেদের সাহায্য নিয়ে পাঠানো হয় বিদ্যাসাগর হসপিটালে। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না। বৃহস্পতিবার সকালে আহত নমিতা দেবীর মৃত্য়ু হয়েছে। 

আরও পড়ুন, টিকিট দেওয়ার অছিলায় মহিলাকে স্পর্শ, প্রকাশ্য়ে মেট্রো কর্মীর কুকীর্তি


এই ঘটনায় রবীন্দ্রনগরে রীতিমত আতঙ্ক ছড়িয়েছে। পরিবারের লোক ও পাড়ার লোকেরা দাবি তুলেছেন, অভিযুক্ত শুভাশিসের যেন কঠোর শাস্তি হয়। অভিযুক্ত শুভাশিসকে পর্ণশ্রী থানার পুলিশ গ্রেফতার করেছে। এদিকে যার বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ, সেই শুভাশিস নিজেই খোদ কলকাতা পুলিশের কর্মী।

আরও পড়ুন, বিজেপিতে অন্য়দের সঙ্গে কথা বলেন, দিলীপের সঙ্গে সম্পর্ক নেই শোভনের