শুভজিৎ পুততুণ্ড, বারাসত-মাঝরাতে বস্তিতে ভয়াবহ আগুন। মুহূর্তের মধ্য়ে গোটা এলাকা গ্রাস করে নেয় আগুনের লিলাহান শিখা। ঘটনাটি ঘটেছে নারকেলডাঙার ক্যানাল স্ট্রিট খালের ধারে। ঘটনার জেরে দমকলের ১০টি ইঞ্জিন আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। ঘটনাস্থলে যান দমকলমন্ত্রী সুজিত বসুও।
আরও পড়ুন-সুখা মাটিতে শিকড় শক্ত পদ্মফুলের, এখন তৃণমূলের অবস্থান কোথায়

সূত্রের খবর, রবিবার মাঝরাতে নারকেলডাঙার ক্যানালপাড়ে অস্থায়ী ঝুপড়িতে আচমকা আগুন লেগে যায়। আগুন লাগার সঙ্গে মুহূর্তের মধ্যে গোটা এলাকা গ্রাস করে নেয় আগুনেল লেলিহান শিখা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় দমকলের ২টি ইঞ্জিন। কিন্তু তাতেও আগুন নিয়ন্ত্রণে না আসায়, পরে আরও দমকলের আটটি ইঞ্জিন আগুন নেভানোর চেষ্টা করে। রাতভর ১০টি ইঞ্জিনের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। ঘটনাস্থলে যান দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু।

আরও পড়ুন-নদীবাঁধ ভেঙে গ্রামে ঢুকেছে নোনা জল, জলমগ্ন ঘরবাড়ি, নতুন করে আতঙ্ক সুন্দরবনে

দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু জানান, অস্থায়ী বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডের জেরে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন অনেকে। প্রায় ৩০ থেকে ৪০টি ঝুপড়ি ভস্মীভূত হয়ে গিয়েছে। ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য সরাকারিভাবে পদক্ষেপ করার আশ্বাস দেন তিনি।

অন্যদিকে, মাঝরাতে ঝুপড়িতে আগুন লাগার কারণে দিশেহারা অবস্থা ওখানকার বাসিন্দাদের। আগুনের জের ঝুপড়ি থাকা তাঁদের গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছে। পুড়ে গিয়েছে আধারকার্ড, ভোটার কার্ড সহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ সামগ্রী। কেউ কেউ মেয়ের বিয়ের জন্য গয়না রাখলেও তাও গ্রাস করেছে আগুনের লেলিহান শিখা। এই অবস্থায় প্রশাসনের কাছে তাঁরা সাহায্য প্রার্থনা করেছেন।

আরও পড়ুন-রূপনারায়ণ নদীতে সন্দেহজনক ট্রলার ঘিরে রহস্য, বাজেয়াপ্ত বেআইনি জিনিসপত্র

ঝুপড়ির মধ্য়ে কীভাবে আগুন লাগল, তা নিয়ে ধন্দে রয়েছেন দমকলকর্মীরা। শর্টসার্কিট থেকে আগুন লাগতে পারে বলে প্রাথমিক অমুমান দমকলের। এদিন ভোর পাঁচটা পর্যন্ত আগুন নেভানোর কাজ করেন দমকলকর্মীরা। এখন পরিস্থিতি আয়ত্তে এলেও কুলিংয়ের কাজ চলছে।