বুধবার ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক জানিয়ে দিল, নরেন্দ্র মোদীর বিমান পাক আকাশের ওপর দিয়ে যাবে না। আগামী ১৩-১৪ জুন সাংহাই কর্পোরেশনের সামিট। এই সামিটে অংশগ্রহণ করার জন্যে বিস্কেকে প্রধানমন্ত্রীর উড়ান পাক আকাশের ওপর দিয়ে যাবে জানা গিয়েছিল। কিন্তু বুধবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের ট্যুইটে সেই সম্ভাবনা বাতিল হয়ে গেল।

সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, দুটি সাম্ভব্য পথ নিয়ে আলোচনা চলছিল।  পাকিস্তানের ওপর দিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা বাতিল হয়েছে। স্থির হয়েছে ওমান, ইরান, ও মধ্য এশিয়ার অন্য দেশগুলির মধ্য দিয়ে বিস্কেক ছোঁবে এই বিমান।

পড়ুন এ বিষয়ের প্রথম খবরঃ মিলল সবুজ সংকেত, পাক আকাশে উড়বে মোদীর বিমান

পুলওয়ামার বদলা স্বরূপ বালাকোটের জঙ্গিঘাঁটিতে ভারত আক্রমণ করার পরেই  গত ২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তান নির্দেশিকা জারি করে  ১১ টি বিমানপথ বন্ধ করে দেয় ভারতের জন্য। দক্ষিণ পাকিস্তানের মাত্র দু'টি পথ দিয়ে চলছিল ভারতীয় বিমান।  গত ২১ মে সুষমা স্বরাজের জন্যেও খুলে দেওয়া হয় পাক আকাশ। ৩১ মে বানিজ্যিক ব্যবহারের জন্যে পাকিস্তানের ১১ টি বিমানপথও খুলে দেওয়া হয়। ৪ জুন ১৪৬০০ কেজি বোঝাই ১৮০ জন যাত্রীসমেত ইন্ডিগো এয়ারবাস  এ৩২০ পাকিস্তানের আকাশ থেকে  সফলভাবে ভারতে অবতরণ করে। ইতিমধ্যে সুষমা স্বরাজের বিমান পাক আকাশ দিয়ে এসেছে। প্রধানমন্ত্রীর বিমানের ক্ষেত্রেও সবুজ সংকেত দিয়েছিল পাকিস্তান।  সিভিল অ্যাভিয়েশন অথারিটির পক্ষ থেকে এয়ারম্যানদের নোটিশও পাঠানো হয়। প্রস্তাব এসেছিল শান্তি আলোচনার। কিন্তু বিদেশমন্ত্রকের সিদ্ধান্ত সেই সমস্ত সমালোচানয় জল ঢেলে দিল। আরও একবার বোঝা গেল, পাকিস্তানের সঙ্গে কোনও সমঝোতাই চাইছে না ভারত। প্রসঙ্গত এই সাংহাই সামিটে যাবেন ইমরানও।