রাজ্যপাল এর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য কলকাতা পুলিশ এবং বিধান নগর পুলিশকে অনুরোধ করলেন তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। কল্যাণের অভিযোগ, 'অপরাধীদের সাহায্য করতে এই ধরণের টুইট করছেন রাজ্যপাল'। 

আরও পড়ুন, উত্তর-দক্ষিণে ধর্মঘট সফল করতে মরিয়া বামেরা, বারাসাতে লাঠিচার্জ পুলিশের, দেখুন ছবি

 

 


'ভারতীয় দন্ডবিধির ১৮৬ এবং ১৮৯ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ রাজ্যপালের বিরুদ্ধে'
 

বৃহস্পতিবার তৃণমূল ভবনে সাংবাদিক সম্মেলন করে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, 'দুই অভিযুক্তকে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন রাজ্যপাল। এটি অসাংবিধানিক এবং এই পদে থেকে এই ধরনের কাজ কখনই করা যায় না'। সঙ্গে ভারতীয় দন্ডবিধির ১৮৬ এবং ১৮৯ ধরার প্রসঙ্গ এনে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, 'এই দুই ধারায় আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা যেতে পারে রাজ্যপালের বিরুদ্ধে'। সে কারণেই কলকাতা এবং বিধান নগর পুলিশের কাছে আবেদন করেছেন তিনি। প্রসঙ্গত এদিন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, 'কয়েকদিন আগে দুই অভিযুক্তের পক্ষে টুইট করে কলকাতা এবং বিধান নগর পুলিশের সমালোচনা করেছিলেন রাজ্যপাল'। তারই পাল্টা হিসেবে এদিন সাংবাদিক সম্মেলন করেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। 

আরও পড়ুন, 'ইশকওয়ালা ফুড', শীতে মুড বদলাতে এখনই বেরিয়ে পড়ুন, রইল কলকাতার সেরা রেস্তোরার হদিশ

 

 

 

আরও পড়ুন, বেরিয়ে পড়ুন বড়ন্তি, কলকাতার কাছেই সেরা ৫ ঘুরতে যাওয়ার জায়গার রইল হদিশ

 


' অবিলম্বে রাজ্যপালকে সরিয়ে দেওয়া হোক রাজ্যপালের পদ থেকে'

 

একইসঙ্গে সংবাদমাধ্যমের মাধ্যমে রাষ্ট্রপতির কাছে আবেদন করেছেন,' অবিলম্বে রাজ্যপালকে সরিয়ে দেওয়া হোক রাজ্যপালের পদ থেকে। অসাংবিধানিক এবং আইন বিরুদ্ধ কাজ রাজ্যপাল করছেন', এই অভিযোগ করেছেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রসঙ্গত কয়েকদিন আগে টুইট করে রাজ্যপাল গোবিন্দ আগারওয়াল এবং সুদীপ্ত রায় চৌধুরীর নামে দুই জনের পাশে দাঁড়িয়েছেন বলে অভিযোগ করেন কল্যাণ। কল্যাণের অভিযোগ, 'অপরাধীদের সাহায্য করতে এই ধরণের টুইট করছেন রাজ্যপাল'। সঙ্গে তিনি বলেন, 'ইডি এবং সিবিআই এর কাছ থেকে তথ্য পেয়েই দুই জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ'।

 

আরও পড়ুন, শীতে কলকাতায় ঘোরার সেরা জায়গা, কমলালেবু খেতে খেতে বেড়িয়ে আসুন এই ঠিকানায়