নয়াবাদের করোনা-আক্রান্ত বৃদ্ধের অবস্থা ক্রমশ আরও জটিল হচ্ছে। কলকাতার কলকাতার পঞ্চসায়রের একটি বেসরকারি হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্তা সিঞ্চন ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, নয়াবাদের ওই বৃদ্ধের শারীরিক অবস্থার উন্নতি না হলে,  একাধিক অঙ্গ বিকল হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।  

আরও পড়ুন, সংকটজনক নয়াবাদের করোনা আক্রান্ত, অক্সিজেনের মাত্রা কমেছে অস্বাভাবাবিক


জানা গিয়েছে, হাসপাতালে ভর্তির প্রথম দিন থেকেই অক্সিজেনের মাত্রা কমতে থাকে নয়াবাদের করোনা-আক্রান্ত বৃদ্ধের শরীরে। বেগতিক দেখে তাঁকে আইসিসিইউতে পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু তাঁর  শারীরিক অবস্থা ক্রমেই আরও খারাপ হতে শুরু করে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাবার দরুণ দুর্বল হয়েছে ফুসফুস। প্রভাব পড়ছে কিডনির উপরেও। পাশাপাশি রক্তচাপও অনেকটাই নেমে এসেছে।

আরও পড়ুন, রেহাই পেল না শিশুরাও, রাজ্যে করোনা আক্রান্ত আরও পাঁচ
 
 
অপরদিকে, ওই নয়াবাদের বৃদ্ধের করোনা আক্রান্তের খবর আসতেই তার পরিবারকেও এমআর বাঙুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাঁর স্ত্রী, ছেলে, বৌমা, নাতনি, পরিচারিকা এই মহূর্তে চিকিৎসাধীন। তাঁদের লালারসের নমুনা ইতিমধ্য়েই পরীক্ষা করতে পাঠানো হয়েছে। চিকিৎসকদের প্রাথমিক অনুমান, ঘটনার সূত্রপাত হয় পূর্ব মেদিনীপুরের এগরার একটি বিয়ে বাড়িতে গিয়ে। সেখানে আমন্ত্রিত ছিলেন ওই বৃদ্ধ,তাঁর পরিবার ছাড়াও  বেশ কয়েক জন বিদেশিও। সেখানেই তিনি কোনও ভাবে সংক্রমিত হয়েছেন কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পাশাপাশি তিনি দিঘাতেও ঘুরতে গিয়েছিলেন। দিঘার হোটেলে বৃদ্ধের সংস্পর্শে কে কে এসেছেন, তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই ওই হোটেল ও সেখানকার কর্মীদের কোয়রান্টিনে থাকতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি  এগরার ১৩ জনের লালারসের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য এসএসকেএম হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন, সাধারণ মৃত্যুকেও পিছু ছাড়ল না করোনা আতঙ্ক, জ্বরে মারা যাওয়ার খবরে ভয়ে কাঁটা হরিদেবপুরবাসী