তৃণমূলের রাজ্য় কমিটিতে আসার পর ফের অস্বস্তি বাড়ল ছত্রধর মাহাতোর। এবার তার বিরুদ্ধে তদন্ত করতে জঙ্গলমহলে যাবে এনআইএ। আদালতের কথা অনুযায়ী জঙ্গলমহলে ক্যাম্প করে তদন্ত হবে ছত্রধর মাহাতোর।

সিপিএম নেতা খুন ও রাজধানী এক্সপ্রেস পণবন্দির দুটি মামলার তদন্তে শালবনিতে ক্যাম্প করবে এনআইএ। মহামারি পরিস্থিতিতে কলকাতায় এসে তদন্তকারী সংস্থার সামনে হাজিরা দেওয়ায় অসুবিধার কথা জানিয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন ছত্রধর মাহাতো। বিচারপতি দেবাংশু বসাক মঙ্গলবার সেই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে শালবনিতে ক্যাম্প করা ও চার সপ্তাহে তদন্ত শেষ করার ব্যাপারে কেন্দ্রের অবস্থান জানতে চান। কেন্দ্রের তরফে এডিশনাল সলিসিটর জেনারেল ওয়াই জে দস্তুর শালবনিতে ক্যাম্প ও চার সপ্তাহে তদন্ত শেষের আশ্বাস দেন। 

ছত্রধরের পক্ষে দেবাশিস রায় ও নীল বসু তদন্তকারী সংস্থাকে তদন্তে সহযোগিতার আশ্বাস দেন। ২০০৯ সালে ঝাড়গ্রামের সিপিএম নেতা প্রবীর মাহাতো খুন ও বাঁশপাহাড়িতে রাজধানী এক্সপ্রেসকে পণবন্দি করে মাওবাদীরা। ইউএপিএ তে মামলা রুজু হয়। সেই ঘটনায় তদন্ত করে চার্জসিট দেয় পুলিশ। অভিযুক্ত হয়ে গ্রেপ্তার হয়েও পরে জামিন পান ছত্রধর। এ বছর এপ্রিল মাসে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক ওই দুটি মামলারই নতুন করে তদন্তের নির্দেশ দেয় এনআইয়েকে। ছত্রধর সেই মামলাতেই সহযোগিতার ক্ষেত্রে কলকাতায় আসা নিয়ে আপত্তি জানিযে হাইকোর্টে এসেছিলেন। 

সেই মামলার শুনানিতে গতকাল কলকাতা হাইকর্টের বিচারপতি দেবাংশু বসাক এনআইএ তদন্ত খারিজ করেননি। আবার আদালত ছত্রধরের আবেদনও খারিজ করেনি। সেপ্টেম্বরে ফের একটি দিন ধার্য করেছে আদালত।