করোনা কোপে শহরের আরও একটি হাসপাতাল। অনির্দিষ্টকালের জন্য রোগী ভর্তি বন্ধ করে দেওয়া হল ঠাকুরপুকুর ক্যান্সার হাসপাতালে। ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত এক রোগীর করোনা ধরা পড়ার পরে ওই হাসপাতালে স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। হাসপাতালে সূত্রে খবর, ওই হাসপাতালে স্বাস্থ্যকর্মীরা আসছেন না। তাই কর্তৃপক্ষের তরফে এই সিদ্ধান্ত। 

আরও পড়ুন, করোনার কোপ এবার সেন্ট্রাল মেডিক্যাল স্টোরে, বেলেঘাটা আইডিতে ভর্তি শীর্ষ স্বাস্থ্যকর্তা

প্রসঙ্গত, ঠাকুরপুকুর ক্যান্সার হাসপাতালে কয়েকদিন আগে মুর্শিদাবাদের সালারের এক বৃদ্ধ ভর্তি হন। চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে যান তিনি। এদিকে ফের অসুস্থ বোধ করায় ঠাকুরপুকুর ক্যান্সার হাসপাতালে ভর্তি হন। চিকিৎসকদের সন্দেহ হওয়ায় তাঁর লালারস নমুনা পরীক্ষার জন্য় পাঠানো হয়। রিপোর্ট পজিটিভ আসায় সঙ্গে সঙ্গেই তাঁকে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই আতঙ্ক ছড়ায় হাসপাতালে।

আরও পড়ুন,'রেশন-ব্যবস্থায় রাজনৈতিক দখল একটি অপরাধ', টুইটারে ক্ষোভ প্রকাশ রাজ্যপালের

অপরদিকে হাসপাতাল অনির্দিষ্টকালের বন্ধ করে দেওয়ার সিন্ধান্ত নেন কর্তৃপক্ষ। তবে এখন যে ৪৫ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন তাঁদের চিকিৎসা চালিয়ে যাওয়া হবে বলে সিদ্ধান্ত হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের। উল্লেখ্য, ওই ব্যক্তির বাড়ির ৩১ জন সদস্যকে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে। আর কারা কারা ওই ব্যক্তির সংস্পর্শে এসেছেন কিনা, তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আপতত, সোমবার পর্যন্ত সব পরিষেবা বন্ধ করা হয়েছে।  এরপর ধাপে ধাপে পরিষেবা স্বাভাবিক করা হবে। তবে জানা গিয়েছে, জরুরিভিত্তিতে কোনও রোগী এলে তাঁকে পরামর্শ দেওয়া হবে।
 

 

 করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্য়ু ক্যানসার রোগীর,আতঙ্ক ছড়াল রাজারহাটের হাসপাতালে

করোনা আক্রান্ত গার্ডেনরিচ থানার শীর্ষ আধিকারিক, স্বাস্থ্য ভবনের তরফে চূড়ান্ত সতর্কতা

 করোনা আতঙ্কে ছেলেকে খুন করলেন আশি ছুঁইছুঁই বাবা, মর্মান্তিক এই খবরে বাকরুদ্ধ কলকাতা