করোনা আবহে  বন্ধ  কলকাতার অধিকাংশ সকল দর্শনীয় স্থান। এই তালিকায় ছিল আলিপুর চিড়িয়াখানাও। তারপর এল অনলাইন আলিপুর চিড়িয়াখানার অ্য়াপ। 'আলিপুর জ্য়ু' এর নতুন ওয়েবসাইট। আরও একধাপ এগিয়ে জন্তু-জানোয়ারদের লাইভ দেখতে খুলে দেওয়া হল সর্ব সাধারণের জন্য। কিন্তু সেখানে ছোটদের ঘরে রেখে যেতে কোন বাবা-মারই বা মন চায় চিড়িয়াখানা ঘুরতে। অবশেষে সব দিক বুঝেই এবার ১০ বছরের শিশুদেরও প্রবেশে অনুমতি মিলল আলিপুর চিড়িয়াখানায়।

 

 

আরও পড়ুন, লোকাল ট্রেন চালু হলেও আপাতত বন্ধ টিকিট বুকিং UTS অ্যাপ, কাউন্টারই এখন একমাত্র ভরসা


একে শহরে শীতের আমেজ। তারপর সোনা রোদের খেলা। আর এরই মাঝে অসংখ্য পরিবার নিষেধাজ্ঞা না মেনেই শিশুদের নিয়ে ভিতরে ঢোকার এমন আর্জি রাখতে যে সিকিউরিটি গার্ড সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে গিয়ে চোখে শস্য়ে ফুল দেখতেন। এরপরে মা-বাবাকে বোঝানোটা রীতিমত দুঃসাধ্য়ের ব্যাপার, তা বুঝেই শেষপর্যন্ত বাচ্চাদের নিয়ে ঢোকার অনুমতি দিল আলিপুর চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। 

 

 

আরও পড়ুন, দীর্ঘ সাড়ে ৭ মাস পর চালু লোকাল ট্রেন, সাতসকালেই কাউন্টারে লম্বা লাইন

এবারই তো জমবে মজা। খাঁচা বন্দী বাঘমামারাও খানিকটা স্বস্তিতে।  এতদিন শুধুই সকাল সন্ধে বড়দের সঙ্গেই  দেখা হত। এবার কচিকাচাদেরও সঙ্গে দেখা হবে। লুচি-আলুরদম খেয়ে সরাসরি বাঘ থেকে পরিযায়ী পাখি সবই এবার কথা বলবে। উল্লেখ্য, রবিবারই সবচেয়ে বেশি ভীড় হয় আলিপুর চিড়িয়াখানা। মোট ২৭০০ জনকে কোভিড বিধি মেনেই ভিতরে ঢুকতে দেওয়া হয়।