নিউটাউনে অধ্যাপককে নিগ্রহের ঘটনায় গ্রেফতার ১।  শুক্রবার রাতে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে নিউটাউন থানার পুলিশ। ইতিমধ্যেই তাঁকে দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। 

আরও পড়ুন, 'শুভেন্দু বিজেপিতে যোগ দিলেই ভাঙবে তৃণমূল সরকার', গর্জে উঠলেন অর্জুন সিং

 

 

ধৃত মুর্শিদাবাদের বাসিন্দা


পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃতের নাম মুর্শেদ আলম। মুর্শিদাবাদের বাসিন্দা। বিল্ডিংয়ের পার্কিংয়ে থুথু ফেলা নিয়ে দুপক্ষের মধ্যে বচসা শুরু হয়। তার থেকেই শুরু হয় মারামারি। এই ঘটনায় দুপক্ষেরই আহত হয়। ধৃতের দাদার সঙ্গে পূর্বে কোনও ঝামেলা ছিল অধ্যাপকের। অভিযুক্তের দাবি, সেদিনের মারামারিতে তাদেরও একজনের হাত ভেঙে হাসপাতালে ভর্তি। উল্লেখ্য, করোনা আবহে বহু মাস আগেই রাজ্য তথা দেশে করোনা বিধির মধ্যে যত্র তত্র থুথু ফেলা বা গুঠকা খেয়া পিক ফেলতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল। কারণ যতো মুখে ভিতরে কিছু বাইরে আসবে, ততো জীবাণু ছড়ানোর প্রবণতা বেড়ে যাবে।  

আরও পড়ুন, 'জীবন থাকতে বিজেপিতে নয়', অর্জুন সিং-র 'স্বপ্নে' জল ঢাললেন সৌগত রায়

 

 

 থুথু ফেলাকে কেন্দ্র গোটা ঘটনা

পুলিশ সূত্রে খবর, পূর্বের কোনও রাগ হয়তো পুষে রাখা ছিল এবং সেদিনের থুথু ফেলাকে কেন্দ্র করে ঘটে এই গোটা ঘটনা। তবে  এর পিছনে অন্য কোনো কারণ আছে কি না তা খতিয়ে দেখছে নিউটাউন থানার পুলিশ।